কেনের ব্যাটে ভর করে শীর্ষে ওঠার পথে কিউয়িরা

293

ক্রাইস্টচার্চ: পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টে রানের পাহাড়ে নিউজিল্যান্ড। আগের দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান কেন উইলিযামসন ও হেনরি নিকোলসের ইনিংসে ভর করে ভালো জায়গায় পৌঁছে গিয়েছিল কিউয়িরা। এরপর শেষদিকে ড্যারিল মিচেলের শতরান পাকিস্তানের বোলারদের হতাশা অনেকটাই বাড়িয়ে দেয়। এদিন মিচেলের শতরান সম্পূর্ণ হতেই ৬৫৯/৬ স্কোরে ইনিংস ডিক্লেয়ার করে নিউজিল্যান্ড। জবাবে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তানের স্কোর ৮/১।

সোমবার দিনের শেষে ২৮৬/৩ স্কোর করেছিল নিউজিল্যান্ড। কেন ১১২ এবং নিকোলস ৮৯ রানে অপরাজিত ছিলেন। এদিন নিকোলস আউট হন ১৫৭ করে। অধিনায়কের সঙ্গে জুটিতে ৩৬৯ রান যোগ করেন তিনি। এরপর উইকেটরক্ষক বিজে ওয়াটলিং (৭) দ্রুত ফিরে গেলেও কেনের উপস্থিতি নিউজিল্যান্ডের উপর চাপ আসতে দেয়নি। তাঁর সঙ্গে যোগ দেন অলরাউন্ডার মিচেল। ব্যক্তিগত ২৩৮ রানে কেন ফিরে গেলেও রান তোলার গতি কমতে দেননি মিচেল। বরং ওয়ান ডে মেজাজে মাত্র ১১২ বলে ১০২ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। শাহিন শা আফ্রিদির বলে চার মেরে মিচেল শতরান সম্পূর্ণ করতেই ডিক্লেয়র করে কিইয়িরা। মিচেলের সঙ্গে তখন ৩০ রানে ব্যাট করছিলেন কাইল জেমিসন। এদিন শতরান করে অধিনায়ককে ধন্যবাদ দিয়েছেন মিচেল।

- Advertisement -

তিনি বলেন, আমার শতরানের বিষয়টি মাথায় রেখে দল কয়েক ওভার বেশি ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। এজন্য আমি কেন ও বাকিদের কাছে কৃতজ্ঞ। কেরিয়ারের তৃতীয টেস্ট খেলতে নেমে প্রথম শতরানটি করলেন তিনি। এদিন একটি করে উইকেট পেয়েছেন শাহিন, ফাহিম আশরাফ ও মহম্মদ আব্বাস। দ্বিতীয দিনেও তাঁরা একটি করে উইকেট পেয়েছিলেন। শেষ বেলায় ব্যাট করতে নেমে কোনও রান না করেই সাজঘরে ফিরেছেন পাক ওপেনার শান মাসুদ। প্রথম ইনিংসেও তিনি শূণ্য করেছেন। এছাড়া আবিদ আলি ৭ ও আব্বাস ১ রানে অপরাজিত রয়েছেন। মাসুদের উইকেটটি নিয়েছেন জেমিসন। এই টেস্টে না হারলেই র্যাংকিংয়ে এক নম্বরে চলে যাবে নিউজিল্যান্ড। এখনও তারা ৩৫৪ রানে এগিয়ে। ফলে পাকিস্তান যে এই টেস্টে হার বাঁচাতে পারবে না, তা নিয়ে বিশেষজ্ঞরা একপ্রকার নিশ্চিত।