পেইনদের সিরিজ বাতিলে সুবিধা নিউজিল্যান্ডের

মেলবোর্ন : দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনা সংক্রমণের ইস্যুতে অস্ট্রেলিয়ার সফর বাতিল করা হয়েছে। ফলে অস্ট্রেলিয়ার বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে যাওয়ার আশা প্রায় শেষ হয়ে গেল। পাশাপাশি এই সিরিজ বাতিল হওয়ায় টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে চলে গেল নিউজিল্যান্ড।

 

- Advertisement -

আগামী মার্চ মাসে দক্ষিণ আফ্রিকায় তিন টেস্টের সিরিজ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেদেশে করোনা পরিস্থিতি গত ডিসেম্বর থেকেই জটিল আকার নিয়েছে। এমনকি প্রোটিয়া ক্রিকেটাররা সংক্রামিত হওয়ায় ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে ওডিআই সিরিজ বাতিল করা হয়। এমন অবস্থায় করোনার কথা মাথায় রেখে সিরিজ বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দুদেশের ক্রিকেট বোর্ড।

এ প্রসঙ্গে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার অন্তর্বর্তীকালীন সিইও নিক হকলে বলেছেন, এই পরিস্থিতিতে দক্ষিণ আফ্রিকায় যাওয়াটা যে ঝুঁকির বিষয়, তা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। ক্রিকেটারদের পাশাপাশি এটা গোটা দেশের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তার উপর খারাপ প্রভাব ফেলতে পারে। তাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে গুরুত্ব দিয়েও আমরা এই সিরিজ বাতিল করতে বাধ্য হয়েছে। সবকিছু ভেবেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

হকলে জানিয়েছেন, করোনার জন্য সিরিজ বাতিলের বিষয়টি তাঁরা দক্ষিণ আফ্রিকা সরকার, ক্রিকেট বোর্ডের পাশাপাশি আইসিসিকেও জানান। সকলেই বিষয়টির গুরুত্ব বুঝতে পেরে সিরিজ বাতিলের পক্ষে মত দেন। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ফের সিরিজ হবে বলে তিনি মনে করছেন। সিরিজ আয়োজন নিয়ে আগ্রহী হওয়ার জন্য প্রোটিয়া ক্রিকেট বোর্ডকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি।

 

এই সিরিজ বাতিল হওয়ায় টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে যাওয়ার লড়াইয়ে ভারত ও ইংল্যান্ড কিছুটা এগিয়ে গেল। ঘরের মাঠে পাঁচ টেস্টের সিরিজে ইংল্যান্ডকে ২-০ বা ২-১ ব্যবধানে হারালেই ফাইনালে যাবে ভারত। আবার বিরাটদের বিরুদ্ধে ৩-০, ৩-১ বা ৪-০ ব্যবধানে জিতলে ফাইনালের টিকিট পাবে ইংল্যান্ড। তবে এই সিরিজে যদি ভারত ১-০ জেতে বা ইংল্যান্ড ১-০, ২-০ বা ২-১ ব্যবধানে জয়ী হয় বা ২-২ ড্র হয়, তবে ফাইনালে যাবে অস্ট্রেলিয়া।