পরিত্যক্ত বাড়িতে রাত-দিন জুয়ার আসর

742

রায়গঞ্জ: পরিত্যক্ত বাড়িতে চলে রাত-দিন জুয়ার আসর। গ্রামবাসীরা অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিল। রায়গঞ্জ শহর লাগোয়া গোয়ালপাড়ার ধুলিয়াবানে একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে দীর্ঘদিন ধরে জুয়া সহ বিভিন্ন অসামাজিক কাজ চলছে বলে অভিযোগ।

গ্রামের যুবকদের পাশাপাশি শহর থেকে যুবকরাও এই ঠেকে শামিল হন। গ্রামের মানুষ এদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ। জুয়া খেলাকে কেন্দ্র করে প্রায় প্রতিটি বাড়িতে অশান্তি লেগে রয়েছে। কিন্তু এতদিন প্রকাশ্যে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায়নি। আজ গ্রামবাসীদের অভিযোগের ভিত্তিতে পরিত্যক্ত বাড়ির সামনে গেলেই ভিতর থেকে বিকট আওয়াজ আসতে থাকে। এরপরেই কয়েকজন গ্রামবাসীদের নিয়ে বাড়ির ভিতরে ঢুকতেই দেখা যায় বেশ কিছু যুবক জুয়ার আড্ডায় বসেছেন। ক্যামেরা শুরু করতেই জুয়ারির দল তাস সহ বিভিন্ন সামগ্রী ফেলে রেখে মাঠের দিকে পালায়।

- Advertisement -

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে জুয়ার ঠেক চলছে এখানে। এলাকার পরিবেশ নষ্ট করে দিচ্ছে। বাড়িতে বাড়িতে অশান্তি। প্রতিবাদ করলেই হুমকি শুনতে হয়। তাই সব জেনে শুনেও নিশ্চুপ থাকতে হচ্ছে। গ্রামবাসীরা আরও জানান, লকডাউনের জন্য কাজ না থাকায় এখন রাত-দিন জুয়া চলছে। পুলিশ জানিয়েও লাভ হচ্ছে না। সকাল থেকে চলে জুয়ার ঠেক।

গ্রামবাসী শামসুল রহমান জানান, এখানে প্রতিদিন খেলা হয়। এলাকার যুবকদের আমরা নিষেধ করি তাও তারা শুনে না। জুয়া খেলা নিয়ে অনেক বাড়িতে অশান্তি। কারণ কাজে না গিয়ে জুয়ার ঠেকে আড্ডা দেয়। জুয়ায় হেরে সর্বশান্ত হয়। শাসন করতে গেলে অপমানিত হতে হয়। তাই এতদিন সবাই চুপ ছিলেন। এখানকার মেম্বার জানে বিষয়টা। আরেক গ্রামবাসী নজরুল মহম্মদ জানান, জুয়া খেলার জন্য এলাকার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। বাইরে থেকেও যুবকেরা আসে এখানে। দীর্ঘদিন ধরে এখানে জুয়া খেলা চলছে। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ প্রশাসন থেকে আসলেও মোড়ের মাথায় খোঁজ খবর নিয়ে চলে যায়।

রায়গঞ্জ ব্লকের ১২ নম্বর বরুয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল সদস্য আজিমুল রহমান জানান, অনেকবার নিষেধ করেছি কিন্তু কিছুতেই বন্ধ করা যায়নি। আজ অভিযোগ পেয়ে যখন এসেছেন আমি অবশ্যই গুরুত্ব সহকারে এই অসামাজিক কাজকর্ম বন্ধ করার উদ্যোগ নেব। আইনি সাহায্য নিয়ে এলাকার পরিবেশ যাতে নষ্ট না হয় সেদিকে দেখব। রায়গঞ্জ থানার আই সি সুরজ থাপা বলেন, শীঘ্রই অভিযান চালানো হবে। জুয়ার ঠেক বন্ধ করা হবে।