জল্পেশ মন্দিরে নিশীথ, নারায়ণী সেনাকে আটকাতে তৎপর পুলিশ

341

ময়নাগুড়ি: ময়নাগুড়িতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামাণিকের কর্মসূচিতে বিজেপি ও নারায়ণী সেনার যোগদান আটকাতে তৎপর হল পুলিশ। বৃহস্পতিবার জল্পেশ মন্দিরে পুজো দেওয়া ঘিরে ময়নাগুড়ি শহরে নারায়ণী সেনাকে আটকে দেয় পুলিশ। এদিন সকাল ১১টা নাগাদ নিশীথ প্রামাণিক লাটাগুড়ি থেকে বিরাট কনভয় নিয়ে ময়নাগুড়ির মারোয়াড়ি গেস্ট হাউসের সামনে পৌঁছোন। তখন পুলিশের বাধা না মেনেই নারায়ণী সেনার সদস্যরা ময়নাগুড়ি শহরে মিছিল বের করে। তিনশোরও বেশি নারায়ণী সেনা জড়ো হয় ময়নাগুড়ি শহরের মারোয়াড়ি গেস্ট হাউসে। পুলিশ সেখানে তাদের আটকে দেয়। সেখানেই দফায় দফায় পুলিশের সঙ্গে নারায়ণী সেনার রীতিমতো ধস্তাধস্তি শুরু হয়ে যায়। এরপর পুলিশ শহরের জাগৃতি মোড়ে পথ আটকে সমস্ত গাড়ির চাকায় কাটা লাগিয়ে দেয়। যদিও তার আগেই নিশীথ প্রামাণিক জল্পেশের উদ্দেশ্যে বেরিয়ে যান। এদিন এই ঘটনাকে ঘিরে ময়নাগুড়িতে ব‍্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ময়নাগুড়িতে এদিন দুপুর ১২টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করেছে পুলিশ। এনিয়ে দুপুরে শহরে মাইকিং করা হয়। জাগৃতি মোড় এবং ইন্দিরা মোড় থেকে পুলিশ ২৭৩ জন নারায়ণী সেনাকে গ্রেপ্তার করে জলপাইগুড়ি পাঠায়। ইতিমধ্যে ঘটনাস্থলে যান মেটেলি থানার আইসি নীলম সঞ্জীব কুজুর, ময়নাগুড়ি থানার আইসি তমাল দাস সহ বিশাল পুলিশবাহিনী ও র‍্যাপিড অ্যাকশন ফোর্স। এই সময় ইন্দিরা মোড়ে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে নারায়ণী সেনা। যদিও সেখানে কিছুক্ষণ পরই পুলিশ অবরোধ তুলে দেয়। দুপুর নাগাদ ময়নাগুড়িতে পৌঁছোন জলপাইগুড়ির পুলিশ সুপার দেবর্ষি দত্ত। বিজেপির জলপাইগুড়ির সাংসদ ডাঃ জয়ন্তকুমার রায়ের দাবি, কয়েকজন কার্যকর্তা জখম হয়েছেন। একজনের আঘাত গুরুতর। দুপুরে ময়নাগুড়ি থানায় যান সাংসদ ড. জয়ন্তকুমার রায়। তিনি জলপাইগুড়ির পুলিশ সুপার দেবর্ষি দত্তের সঙ্গে কথা বলতে চান। কিন্তু পুলিশ সুপার কথা না বলায় ময়নাগুড়ি থানায় ধর্নায় বসেন। শেষ খবর পাওয়া অবধি ধর্না চলছে বলে জানা গিয়েছে।

- Advertisement -