আসল খেলোয়াড় কে, তা ময়দানে প্রমাণ হবে: নিশীথ

215

ফুলবাড়ি: বন্ধু খেলতে এসো, ময়দানে প্রমাণ করে দেব আসল খেলোয়াড় কে। তৃণমূল কংগ্রেসের দিকে এভাবেই চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন কোচবিহারের বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক। শনিবার মাথাভাঙ্গা-২ ব্লকের বড় শৌলমারি গ্রাম পঞ্চায়েতের দরিবশ ফুলবাড়ি সূর্যোদয় যুব সংঘের বার্ষিক নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার জন্য নিজের সাংসদ তহবিলের অর্থে ডুডুয়া ও জলঢাকা নদীর মোহনার পাশে তৈরি মুক্তমঞ্চের উদ্বোধন করেন সাংসদ। সেখানে অনুষ্ঠান মঞ্চে তৃণমূলকে একহাত নেন তিনি।

নিশীথ বলেন, ‘আজ পশ্চিমবঙ্গ জুড়েই একটা শব্দ শোনা যাচ্ছে, খেলা হবে খেলা হবে। পশ্চিমবঙ্গের সংস্কৃতি এটা নয়। উন্মাদের মতো রাস্তায় রাস্তায় ডিজে বাজিয়ে বলে বেড়াচ্ছে খেলা হবে, খেলা হবে। বন্ধু এসো ময়দানে প্রমাণ করে দেব, কে আসল খেলোয়াড়।’ তিনি বলেন, ‘২০১৯ সালে লোকসভা ভোটে উত্তরবঙ্গের মানুষ ৭-০ করে তৃণমূল কংগ্রেসকে ঝাঁটা দিয়ে ঝেঁটিয়ে উত্তরবঙ্গ থেকে বিদায় করেছে। আর ২০২১ সালে উত্তরবঙ্গের মানুষ প্রস্তুত হয়ে রয়েছে। ২০২১ সালে উত্তরবঙ্গ থেকে ৫৪-০ করে আপনাদের হারিয়ে বিদায় ঘণ্টা বাজিয়ে দেব।’

- Advertisement -

নদীর পাড়ে ক্লাবের জন্য যিনি জমি দান করেছিলেন সেই জমিদাতা স্বর্গীয় অনিল সিংহের নামে এদিন মুক্তমঞ্চ উৎসর্গ করেন সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক। এদিন ক্লাব ও স্থানীয় বাসিন্দাদের তরফে মুক্তমঞ্চের সামনে ডুডুয়া নদীতে একটি পাকা সেতু ও ৫০০ মিটার স্থায়ী পাড়বাঁধের দাবি জানানো হয়। একটি জয়েজ ব্রিজ তৈরি করে দেওয়ার আশ্বাসও দিয়েছেন সাংসদ। এদিন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির কোচবিহার জেলা কমিটির সম্পাদক সুশীল বর্মন, বিজেপির ৫ নম্বর জেলা পরিষদ মণ্ডলের সভাপতি বিশ্বরূপ রায় প্রমুখ।

সূর্যোদয় যুব সংঘের সম্পাদক সঞ্জয় সরকার বলেন, ‘সাংসদ কথা দিয়েছিলেন। তিনি কথা রেখেছেন। আমরা স্থায়ী মুক্তমঞ্চ পেয়েছি। এর চেয়ে খুশির আর কিছু হতে পারে না।’ মুক্তমঞ্চ তৈরির জন্য সাংসদ তহবিল থেকে ২৪ লক্ষ টাকা ব্যয় হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এদিন মুক্তমঞ্চ উদ্বোধনের আগে সিঙ্গিজানির সাল্টি ডাঙ্গায় সাংসদ তহবিলের টাকায় তৈরি করা একটি কংক্রিট ঢালাই রাস্তার উদ্বোধন করেন নিশীথ।