নদী পেরিয়ে ভোট দিতে যাবেন ছাওয়াফেলির বাসিন্দারা

160

চালসা: ভোট আসে ভোট যায় কিন্তু মেটেলি ব্লকের ছাওয়াফেলির অবস্থার পরিবর্তন হয় না। প্রতি বছরের মতো এবারও নেওড়া নদী পেরিয়ে ভোট দিতে যাবেন সেখানকার বাসিন্দারা। দীর্ঘদিনের দাবি সত্ত্বেও নেওড়া নদীর ওপর সেতু হয়নি। ফলে বর্ষাকালে চরম ভোগান্তির শিকার হন বাসিন্দারা। অভিযোগ, এলাকার জনপ্রতিনিধিরা সেভাবে খোঁজ খবর নেন না। এমনকি এবার ভোটের প্রচারে আসেননি কোনও প্রার্থী। স্বাভাবিকভাবেই বিষয়টি নিয়ে এলাকায় ক্ষোভ জমছে। তবে বাসিন্দাদের বক্তব্য, তাঁরা ভোট দেবেন। কিন্তু সেইসঙ্গে এলাকার সমস্যা সমাধানে নজর দেওয়া হোক।

ছাওয়াফেলি এলাকার নেওড়া নদীর পাড়ে প্রায় ২০০ ভোটারের বসবাস। বাসিন্দারা জানান, প্রায় ১ কিমি নদী পথ পেরিয়ে তাঁদের ভোট দিতে যেতে হয়। এবারের বিধানসভা নির্বাচনেও তাঁদের নেওড়া নদীর হাঁটু জল পেরিয়ে ছাওয়াফেলি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট দিতে যেতে হবে।

- Advertisement -

নেওড়া নদীর পাড়ে মাল ব্লকের কুমারপাড়া সংলগ্ন অফিসপাড়া, বিরসাপাড়া, সাক্ষীপাড়া, শুক্রামুন্ডাপাড়া রয়েছে। ওই এলাকাটি মেটেলি ব্লকের মাটিয়ালি-বাতাবাড়ি ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের অধীন। কিন্তু অভিযোগ, সেখানকার বাসিন্দারা সমস্ত সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত। স্থানীয় বাসিন্দা কালে তামাং জানান, বর্ষায় তাঁদের যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম নৌকা। নেওড়া নদীতে সেতু তৈরি হয়নি আজও। এলাকায় রয়েছে নদী ভাঙনের সমস্যা। কিন্তু সমস্যা সমাধানে কোনও পদক্ষেপ করা হয়নি।

বাসিন্দাদের বক্তব্য, প্রতিবারই তাঁরা নদী পেরিয়ে ভোট দিতে যান। কিন্তু সমস্যার কোনও সমাধান হয় না। এবার তো ভোটের প্রচারে এলাকায় আসেননি কোনও দলের নেতাই। তবুও তাঁরা ভোট দেবেন। নাগরিক অধিকার প্রয়োগ করবেন। ব্লক প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, ছাওয়াফেলির বাসিন্দাদের ভোট দিতে যাতে কোনও সমস্যা না হয়, সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।