প্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব পেশ বিডিওকে

212

মানিকগঞ্জ: বিধানসভা ভোটে পরাজিত হওয়ার পর বিজেপির গোষ্ঠীকোন্দলের আঁচ পড়ল জলপাইগুড়ি সদর ব্লকের খারিজা বেরুবাড়ি-২ গ্রাম পঞ্চায়েতে। সোমবার দলীয় প্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব দিলেন দলেরই সংখ্যাগরিষ্ঠ পঞ্চায়েত সদস্য। ইতিমধ্যেই জলপাইগুড়ি সদর ব্লকের বিডিও’র কাছে প্রধানকে সরিয়ে আস্থাভোট করার দাবি জানিয়েছেন গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্যদের একাংশ। এদিন সিপিএমের পঞ্চায়েত সদস্য সহ পাঁচজন পঞ্চায়েত সদস্য প্রধানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব বিডিও’র কাছে জমা দেন। বিডিও তা গ্রহণ করে বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।

খারিজা বেরুবাড়ি-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের মোট সদস্য ১০ জন। এরমধ্যে বিজেপির সাতজন, তৃণমূল, সিপিএম ও ফরওয়ার্ড ব্লকের একজন করে সদস্য রয়েছে। বেশকিছুদিন ধরে বিভিন্ন বিষয়ে একাংশ পঞ্চায়েত সদস্যের সঙ্গে প্রধানের বিতণ্ডা শুরু হয়। সরকারি বিভিন্ন প্রকল্পের কাজের ব্যাপারে পঞ্চায়েত সদস্যদের না জানানো সহ নিজের পছন্দের ঠিকাদারকে কাজ পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল প্রধানের বিরুদ্ধে।

- Advertisement -

বিডিও অফিস সূত্রে জানা গিয়েছে, অনাস্থা প্রস্তাবের একটি দাবিপত্র জমা পড়েছে। তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান রেবতী রায় বলেন, ‘তৃণমূলের বহিষ্কৃত একমাত্র পঞ্চায়েত সদস্যের প্ররোচনায় দলীয় সদস্যরা তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ তুলে অনাস্থা প্রস্তাবের ডাক দিয়েছে। আমি সমস্ত বিষয় দলীয় নেতৃত্বকে জানিয়েছি।’ যদিও অনাস্থা প্রস্তাবে স্বাক্ষরকারী গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান ডালটন রায় বলেন, ‘বোর্ড মিটিং ছাড়াই একক সিদ্ধান্তে এলাকার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করে আসছেন প্রধান। অন্য সদস্যদের সঙ্গে অসহযোগিতা, দায়িত্ব ও কর্তব্যে গাফিলতি রয়েছে।’