রেঞ্জ অফিসে নেই বিদ্যুৎ, সমস্যায় বনকর্মীরা

393

ময়নাগুড়ি: রেঞ্জ অফিসে দুদিন ধরে বিদ্যুৎ নেই। বিদ্যুৎ পরিষেবা স্বাভাবিক না হওয়া সমস্যা দেখা দিয়েছে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যে থেকে বিদ্যুৎহীন ময়নাগুড়ি ব্লকের রামশাই মোবাইল স্কোয়াডের অফিস৷ রেঞ্জার বিশ্বজ্যোতি দে জানান, বিষয়টি অনলাইনেও জানানো হয়েছে। বিদ্যুৎ দপ্তরের অফিসেও একাধিকবার টেলিফোনের মাধ্যমে সমস্যার কথা জানানো হয়েছে। দীর্ঘক্ষণ পেরিয়ে যাওয়ার পর শুক্রবার সন্ধ্যে নাগাদ বিদ্যুৎ দপ্তরের কর্মীরা আসলে সুরাহা হয়নি। অন্ধকারাচ্ছন্ন অবস্থাতেই কাটছে দপ্তর।

তবে সব থেকে বড় সমস্যা হয়ে দাড়িয়েছে সার্চ লাইট চার্জ করা নিয়ে। রেঞ্জার জানান, প্রতিদিনই রাতে জঙ্গল থেকে বিভিন্ন জায়গাতে হাতি বেরিয়ে আসার ঘটনা ঘটছে। লোকালয় থেকে জঙ্গলে হাতিকে ফেরত পাঠাবার জন্য সারারাত ধরেই বনকর্মীরা টহল দেয় সার্চ লাইট নিয়ে। কিন্তু অফিসে বিদ্যুৎ না থাকার দরুণ সার্চ লাইট চার্জ করাতে সমস্যা হচ্ছে। বৃহস্পতিবার রাতেও কাউয়াগাব এলাকায় একটি দোকান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে হাতির হানায়। অন্যদিকে বারো হাতি এলাকাতেও একটি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। একাধিক জায়াগাতে সন্ধ্যের পরেই বেরিয়ে আসছে হাতি। সেক্ষেত্রে রাতে সার্চ লাইটের আলোই একমাত্র ভরসা। কিন্তু বিদ্যুৎ চলে যাওয়ার দরুণ ব্যাটারির সাহায্য নিতে হচ্ছে।

- Advertisement -

দ্রুত বিদ্যুৎ স্বাভাবিক না হলে রাতে নজরদারি চালাতে বড় সমস্যা দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা দেখা দেবে। অন্যান্য মরসুমের তুলনায় এই মরসুমে হাতির আনাগোনা বেড়ে গিয়েছে। একটি, দুটি করে হাতি বিভিন্ন জায়গাতে বেরিয়ে এলেও দলহাতি বিভিন্ন জায়গা জুড়ে বিচরণ করছে। সমগ্র রামশাই এলাকা জুড়েই হাতির খবর আসছে। এলাকার কালামাটি, চড়াইমহল, কাওয়াগাব, যাদবপুর বাগান, কামারঘাট, বারোহাতি, নৌকাবিহার সহ বিস্তীর্ণ জায়গাতে হাতি বিক্ষিপ্ত অবস্থায় রাতে বেড়িয়ে আসছে। বিকেলের পরেই জঙ্গলের বিভিন্ন জায়গা থেকে লোকালয়ে বেরিয়ে আসছে হাতি। রাতভর নজরদারি চালাচ্ছেন বনকর্মীরা। ময়নাগুড়ি বিদ্যুত দপ্তর সুত্রে খবর শনিবারের মধ্যে পরিষেবা দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।