স্কুলে পড়ুয়াদের দেখা নেই, সাইকেল ফেরত গেল

সুচন্দন কর্মকার, কালিয়াগঞ্জ : সবুজ সাথীর সাইকেল আছে। কিন্তু সাইকেল নেওয়ার জন্য কোনও ছাত্র নেই। ফলে ছাত্রদের জন্য আসা সবুজ সাথীর সাইকেল ফেরত চলে গেল কালিয়াগঞ্জ থেকে। উপভোক্তা ছাত্রের খোঁজ না মেলায় কালিয়াগঞ্জ থেকে শুক্রবার এই সাইকেল ফেরত পাঠানো হয়। সরকারি ভাষায় অবশ্য ফেরত বলা হচ্ছে না, বলা হচ্ছে অ্যাডজাস্ট করা হয়েছে।

এদিন কালিয়াগঞ্জ বিডিও অফিস থেকে সবুজ সাথী প্রকল্পের ১৫০টি সাইকেল পাঠানো হয় গোয়ালপোখর ব্লকে। ব্লক প্রশাসনের তত্বাবধানে দুটি ট্রাকে চাপিয়ে কালিয়াগঞ্জের সাইকেল পাঠানো হয় গোয়ালপোখরে। সবুজ সাথী প্রকল্পে কালিয়াগঞ্জ থেকে সাইকেল ফেরত যাওয়ার ঘটনা এই প্রথম। এ পিছনে স্কুলছুট বাড়ার ঘটনা আছে বলে জানা গিয়েছে। কালিয়াগঞ্জে স্কুলছুটদের কারণে সবুজ সাথীর সাইকেল ফেরত যাওয়ার ঘটনায় রীতিমতো উদ্বিগ্ন প্রশাসন। সাইকেল ফেরতের ঘটনায় দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে কালিয়াগঞ্জের বিধায়ক তপন দেবসিংহ উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, যে স্কুলগুলি থেকে সাইকেল নিতে আসেনি ছাত্রছাত্রীরা, তাদের সঙ্গে কথা বলে স্কুলছুট আটকানোর চেষ্টা করা হবে। পাশাপাশি স্কুলছুট শূন্যে নামিয়ে আনতে মিড-ডে মিল প্রকল্পে দশম শ্রেণিকে যুক্ত করতে বিধানসভায় দাবি তুলবেন বলে তিনি জানান।

- Advertisement -

শুক্রবার দুপুরে কালিয়াগঞ্জ থেকে সবুজ সাথীর সাইকেল ফেরত যাওয়ার ঘটনায় প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০১৯ সালে যে সব ছাত্রছাত্রী নবম শ্রেণিতে পড়াশোনা করছিল, এই সাইকেল এসেছিল তাদের জন্য। কালিয়াগঞ্জ ব্লকে পুজোর আগে এই সাইকেল এলেও তা বিলি করা শুরু হয় ডিসেম্বর মাসে। পুজোর দীর্ঘ ছুটি ও নভেম্বরে কালিয়াগঞ্জে বিধানসভার উপনির্বাচনের জন্য এই সাইকেল বিলি হয় একটু দেরিতে। কালিয়াগঞ্জের মাধ্যমিক পর্যায়ে সব স্কুলে ২০১৯ শিক্ষাবর্ষে পড়াশোনা করা ছাত্রছাত্রীদের নামের তালিকা অনুসারে এই সাইকেল এসেছিল। বিলি প্রক্রিয়া শেষ হলেও কালিয়াগঞ্জ বিডিও অফিসে প্রায় দুশো সাইকেল থেকে যায়। পরবর্তীতে ব্লক প্রশাসন এই সাইকেলগুলি নিয়ে যেতে স্কুলগুলিকে নির্দেশ দিলে সামনে আসে স্কুলছুটের কাহিনি।

২০১৯ সালের নবম শ্রেণির যে ছাত্রদের জন্য এই সাইকেল, তারা দীর্ঘদিন ধরে স্কুলে আসছে না। অধিকাংশ ছাত্র পেটের দায়ে পরিবারের সঙ্গে দিল্লি, মুম্বই, গুজরাটে কাজের সন্ধানে গিয়েছে বলে তথ্য সামনে আসে। কিছু দিন অপেক্ষার পর কালিয়াগঞ্জ ব্লক প্রশাসন বিলি না হওয়া সবুজ সাথীর সাইকেল ফেরত দেওয়ার উদ্যোগী হয়। জেলা প্রশাসনের নির্দেশমতো কালিয়াগঞ্জে বিলি না হওয়া ১৫০টি সাইকেল পাঠানো হয় গোয়ালপোখরে। মিড-ডে মিলের খাবার না পাওয়ায় অষ্টম শ্রেণির পর নতুন করে যে স্কুলছুট তৈরি হচ্ছে উত্তর দিনাজপুর জেলায়, তার জলন্ত প্রমাণ দিল কালিয়াগঞ্জ।