আরও ৪ দিন পুলিশ হেপাজতে সুশীল

নয়াদিল্লি : সুশীল কুমারের পুলিশ হেপাজতের মেয়াদ বাড়ল। অন্যদিকে, রাজসাক্ষী হতে পারেন সুশীলের সঙ্গী প্রিন্স।

সাগর ধনখড় হত্যা মামলায় গত রবিবার গ্রেপ্তার করার পর সুশীলকে ৬ দিনের জন্য পুলিশ হেপাজতে পাঠায় আদালত। শনিবার সেই মেয়াদ শেষ হওয়ায় ফের তাঁকে আদালতে পেশ করে ৭ দিনের জন্য হেপাজতে চায় দিল্লি পুলিশ। তবে বিচারক ৪ দিনের জন্য পুলিশের হেপাজতে পাঠান। এদিন আদালতে পুলিশের আইনজীবী আশিস কাজল জানান, সুশীল এই ৬ দিনে তদন্তের ক্ষেত্রে পুলিশকে কোনও সাহায্য করেননি। উল্টে তদন্তের কাজে বাঁধা সৃষ্টি করেছেন। পুলিশ হেপাজত বাড়ানোর যুক্তি হিসেবে তিনি বলেন, সুশীলের বাড়ির সিসিটিভি ক্যামেরার ওই রাতে ফুটেজ এখনও উদ্ধার হয়নি। এমনকি ওই রাতে সুশীলরা যে পোষাক পরে ছিলেন, তাও এখনও পাওয়া যায়নি। এমন অবস্থায় সুশীল পুলিশ হেপাজতে না থাকলে প্রমাণ নষ্টের আশঙ্কা করেন তিনি। এরপর সুশীলের আইনজীবী তাঁর যুক্তির বিরোধীতা করলেও কাজ হয়নি। মেট্রোপলিটান ম্যাজিস্ট্রেট ময়াঙ্ক গোয়েল বলেন, ন্যায়ের স্বার্থে আমি পুলিশের আবেদন ৪ দিনের জন্য মঞ্জুর করছি।

- Advertisement -

পুলিশ সূত্রে খবর, এই মামলায় অন্যতম অভিযুক্ত প্রিন্স রাজসাক্ষী হতে রাজি হয়েছে। খুনের রাতের একটি ভিডিওয় দেখা গিয়েছে, সাগরদের মারধর করার সময় সুশীল প্রিন্সকে গোটা ঘটনা ক্যামোরবন্দী করতে নির্দেশ দিচ্ছেন। তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, ওই ভিডিও দেখিয়ে পরবর্তীতে নিজের দাপট বাড়ানোর পরিকল্পনা ছিল সুশীলের। এই মামলায় ১২ অভিযুক্তের মধ্যে ৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে দিল্লি পুলিশ। তাঁদের বিরুদ্ধে খুন, অপহরণ, অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র, মহামারি আইন এবং অস্ত্র আইনের বিভিন্ন ধারায় মামলা করা হয়েছে। বাকি তিন অভিযুক্ত প্রবীণ, প্রদীপ এবং বিনোদ প্রধানের খোঁজ চলছে বলে দিল্লি পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ জানিয়েছে।