উত্তরে স্পেশাল ট্রেন চলছে না, শ্রমিকদের ফেরাতে নির্বিকার রাজ্য

197

শিলিগুড়ি : উত্তরবঙ্গে যেমন বিভিন্ন জায়গার পরিযায়ী শ্রমিকরা আটকে রয়েছেন, তেমনই দেশের বিভিন্ন জায়গায় কাজ করতে গিয়ে আটকে পড়েছেন এখানকার প্রচুর শ্রমিক। কিন্তু তাঁদের ফিরিয়ে আনতে বা এখানে আটকে পড়া শ্রমিকদের বাড়ি ফেরানোর ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের তরফে কোনও উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠছে। রাজ্য সরকারের দেওয়া কন্ট্রোল রুমের নম্বরে ফোন করে সংযোগ পাওয়া যাচ্ছে না বলে অনেকেই অভিযোগ তুলেছেন। রেল সূত্রে জানা গিয়েছে, এখনও পর্যন্ত এখানকার শ্রমিকদের বাইরে নিয়ে যাওযা বা অন্য রাজ্য থেকে এখানে শ্রমিকদের নিয়ে আসার ক্ষেত্রে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনের জন্য রাজ্য সরকারের তরফে কোনও কিছুই জানানো হয়নি। উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক শুভানন চন্দ বলেন, বিহার প্রশাসনের তরফে অনুরোধ করায় আমরা ট্রেনের ব্যবস্থা করেছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গ এবং অসম সরকারের তরফে এই ধরনের কোনও অনুরোধ পাইনি। পরিস্থিতি নিয়ে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ তুলেছে বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠন। এ ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপ করতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি লিখেছেন দার্জিলিংয়ে সাংসদ রাজু বিস্ট। তিনি বলেন, প্রচুর মানুষ ফোন করে জানাচ্ছেন তাঁরা বাড়ি ফিরতে চাইলেও কোনও সহযোগিতা পাচ্ছেন না। ফলে উৎকণ্ঠা এবং চরম সমস্যার মধ্যে তাঁদের দিন কাটছে। এ কারণেই মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি লিখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ করেছি। শিলিগুড়ির মহকুমা শাসক সুমন্ত সহায় বলেন, এখানে আটকে থাকা শ্রমিকদের তালিকা আমরা পাঠিয়ে দিয়েছি। গোটা বিষয়টি রাজ্য প্রশাসন দেখছে।

উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের সহযোগিতায় বিভিন্ন রাজ্যে আটকে থাকা শ্রমিক, পড়ুয়াদের ফিরিয়ে নিয়ে এসেছে বিহার সরকার। বিভিন্ন রাজ্যের আটকে থাকা শ্রমিকদের বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রেও উদ্যোগী হয়েছে বিহার প্রশাসন। যার জন্য রাজস্থানের জয়পুর, কোটার পাশাপাশি কেরলের কোঝিকোড় থেকে বিহারে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন এসেছে। পাশাপাশি বিহারের কাটিহার, কিশনগঞ্জ, পূর্ণিয়া এবং আরারিয়া থেকে শ্রমিকদের নিয়ে বিভিন্ন রাজ্যের উদ্দেশে রওনা দিয়েছে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন। কিন্তু উত্তরবঙ্গে যেমন এখনও পর্যন্ত এ ধরনের কোনও ট্রেন এসে পৌঁছায়নি, তেমনই এখানে আটকে থাকা শ্রমিকদের নিয়ে অন্য রাজ্যগুলির উদ্দেশে কোনও ট্রেন রওনা দেয়নি। শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন চালানোর ব্যাপারে এদিন পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে কোনওরকম অনুরোধ করা হয়নি বলে উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলকর্তারা জানিয়েছেন। রাজ্য অনুরোধ করলে উত্তরবঙ্গের স্টেশনগুলি থেকেও শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন চালানো হবে বলে জানান উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক। এদিকে, উত্তরবঙ্গের আটকে থাকা শ্রমিকদের নিয়ে বা বাইরের রাজ্যে থাকা শ্রমিকদের ফিরিয়ে আনার ক্ষেত্রে রাজ্য প্রশাসন থেকে কোনও উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ তুলেছে বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠন। ইনটাকের দার্জিলিং জেলা সভাপতি অলোক চক্রবর্তী বলেন, প্রশাসন কী করছে বুঝতে পারছি না। প্রশাসনের তরফে কোনও উদ্যোগ না নেওয়ায় চরম সমস্যায় পড়েছেন শ্রমিকরা। একই অভিযোগ তুলে সিটুর দার্জিলিং জেলা কমিটির সম্পাদক সমন পাঠক বলেন, কন্ট্রোল রুমের নম্বরের পাশাপাশি কোনও নোডাল অফিসারের নম্বরে ফোন লাগছে না। ফলে রাজ্যের ভূমিকায় আমরা হতাশ।

- Advertisement -