টানা তিনদিন বৃষ্টির জলে ভাসবে উত্তরবঙ্গ

811

শিলিগুড়ি: নিম্নচাপের একটানে প্রচুর জলীয় বাষ্প উত্তরবঙ্গে। এর প্রভাবে উত্তরবঙ্গে আজ সোমবার থেকে আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ভারী বৃষ্টির সর্তকতা দিল আবহওয়া দপ্তর। আবহওয়া দপ্তরের দাবি অনুযায়ী, উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির প্রভাবে নদীর জল স্তর বাড়তে পারে। প্লাবিত হতে পারে নিচু এলাকা।

হাওয়া দপ্তরের দাবি, বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের সৃষ্টি হয়েছে। উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগর থেকে নিম্নচাপের অবস্থান উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর। ওড়িশা সংলগ্ন উপকূলে নিম্নচাপের অবস্থান। একই সঙ্গে রয়েছে ঘূর্ণাবর্ত। আগামী তিনদিন এই নিম্নচাপ পশ্চিম ও উত্তর পশ্চিম অভিমুখে এগোবে। এবং আরও শক্তি সঞ্চয় করবে। বঙ্গোপসাগর দিয়েই ওড়িশার দিকে সরে যাওয়ায় নিম্নচাপের প্রভাব কিছুটা কম পড়বে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে। সমুদ্র উত্তাল হবে। সঙ্গে ৪৫ থেকে ৫৫ কিলোমিটার বেগে উপকূলে ঝড়ো হাওয়া বইবে। এ কারণে মঙ্গলবার পর্যন্ত মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।

- Advertisement -

আবহওয়াবিদদের বক্তব্য অনুযায়ী, আগামী বুধবার অতিভারী বর্ষণের কমলা সর্তকতা উত্তরবঙ্গে। মূলত অতিভারী বৃষ্টি হবে দার্জিলিং, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, জলপাইগুড়িতে। কমলা সর্তকতা রয়েছে মালদা উত্তর দিনাজপুর ও দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায়। বৃহস্পতিবারও ভারী বৃষ্টির জন্য উত্তরবঙ্গের পার্বত্য এলাকায় হলুদ সর্তকতা জারি করা হয়েছে। অর্থাৎ, ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভবনা আছে দার্জিলিং,কালিম্পং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার ও জলপাইগুড়ি জেলায়। উত্তরবঙ্গে ভারী বৃষ্টির প্রভাবে ল্যান্ড স্লাইড অর্থাৎ ধ্বসের প্রবল সম্ভাবনা পার্বত্য এলাকায়। মূলত দার্জিলিং ও কালিম্পং জেলায় ধ্বসের প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহওয়া দপ্তরের দাবি, শুধু উত্তরবঙ্গে নয়, দক্ষিণবঙ্গেও ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির সম্ভবনা রয়েছে। তাদের বক্তব্য অনুযায়ী, দক্ষিণবঙ্গের মূলত চার জেলায় সোমবার বিক্ষিপ্ত অতিভারী বর্ষণের সম্ভবনা রয়েছে। জেলাগুলি পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া। ভারী বর্ষণের সর্তকতা রয়েছে আরও চার জেলায়। বীরভূম, পূর্ব বর্ধমান, পশ্চিম বর্ধমান ও মুর্শিদাবাদে। কলকাতা সহ বাকি জেলা গুলিতে মাঝারি থেকে ভারি বর্ষণের সর্তকতা। তবে, মঙ্গলবার ফের মুর্শিদাবাদ ও বীরভূম জেলায় ভারী বর্ষণের সম্ভবনা রয়েছে।