লয়েড, স্টিভের দলের থেকে পিছিয়ে বিরাটরা

মুম্বই : ক্লাইভ লয়েডের ওয়েস্ট ইন্ডিজ বা স্টিভ ও, রিকি পন্টিংয়ের অস্ট্রেলিয়া।

দীর্ঘ একটা সময় ধরে ক্রিকেট বিশ্বে আধিপত্য দেখিয়েছিল। বিরাট কোহলির ভারতের মধ্যেও অনেকে যা খুঁজে পাচ্ছেন। দেশে-বিদেশে বিরাটদের ধারাবাহিকতা যে বিতর্ক উসকে দিয়েছে। যদিও সুনীল গাভাসকার এরসঙ্গে সহমত নন। তাঁর মতে, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, অস্ট্রেলিয়ার মতো একাধিপত্য দেখানো সম্ভব নয় বিরাট ব্রিগেডের পক্ষে।

- Advertisement -

গাভাসকারের যুক্তি, ওয়েস্ট ইন্ডিজ যেভাবে ক্রিকেটকে শাসন করেছে একসময়, তা বিরাটদের পক্ষে দেখানো সম্ভব কি না, আমি অন্তত নিশ্চিত নই। সেসময় ওয়েস্ট ইন্ডিজ পাঁচ ম্যাচের সিরিজ খেললে, পাঁচটাতেই জিতত। অস্ট্রেলিয়াও পাঁচটার মধ্যে চারটিতে। এই ভারতীয় দলের পক্ষে এই দাপট দেখানো কঠিন। প্রতিভাবান হলেও, এদের মধ্যে প্রায়ই ধারাবাহিকতার অভাব দেখা যায়। ওয়েস্ট ইন্ডিজ, অস্ট্রেলিয়ার তালিকায় তাই রাখতে পারছি না এই ভারতীয় দলকে।

গত শতাব্দীর সাত ও আটের দশকে ক্লাইভ লয়েডের দল গোটা বিশ্ব কাঁপিয়েছে বেড়িয়েছে। প্রথম দুবারের বিশ্বকাপজয়ী তারা। অপরদিকে ১৯৯০ থেকে ২০১০, রাজত্ব চালিয়েছে স্টিভ এবং পন্টিংয়ের অস্ট্রেলিয়া। টানা তিনবার বিশ্বকাপজয়ী। দুবার টানা ১৬টি টেস্টও জেতার নজিরও গড়ে।

এদিকে, টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালের কমেন্ট্রি টিমে দীনেশ কার্তিককে স্বাগত জানিয়েছেন গাভাসকার। ভারত-নিউজিল্যান্ড খেতাবি যুদ্ধে নতুন ভূমিকায় কার্তিক। সানির সঙ্গে দ্বিতীয় ভারতীয় হিসেবে ফাইনালে ধারাভাষ্য দেবেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় কার্তিকের সঙ্গে নিজের ছবি পোস্ট করে গাভাসকার লিখেছেন, ভারতীয় দলে আমি যখন পরামর্শদাতা ছিলাম, তখন দীনেশ কার্তিকের টেস্ট অভিষেক ঘটেছিল। ডব্লিউটিসি ফাইনাল দিয়ে এবার ওর কমেন্ট্রি অভিষেক। আমি নিশ্চিত, কমেন্ট্রি বক্সেও সফল হবে দীনেশ। শুভেচ্ছার জন্য কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন কার্তিকও।