নয়াদিল্লি, ২৫ ডিসেম্বরঃ অবশেষে পুলিশের হাতে ধরা পড়ল নাবালিকাদের পাচার এবং দেহব্যবসা চক্রের মূল অভিযুক্ত গীতা অরোরা ওরফে সোনু পঞ্জাবন। ৬ মাস ধরে চালানোর পর শনিবার তাকে গ্রেফতার করে দিল্লি পুলিশ। ক্রাইম ব্রাঞ্চের সাইবার সেলের এসিপি সন্দীপ লাম্বার নেতৃত্বে একটি দল সোনুকে জেরা করে।

পুলিশ জানিয়েছে, ২০০৯ সালে ১২ বছর বয়সী এক নাবালিকাকে জোর করে দেহব্যবসায় নামিয়েছিল সোনু। ২০১৪ সালে পালিয়ে এসে ওই কিশোরী নজফগড় থানায় সোনু ও তার সঙ্গীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে। কিন্তু, সে সময় পুলিশ কোনও ব্যবস্থা না নেওয়ায় প্রাণের ভয়ে লুকিয়ে পড়েছিল সে। এরপর বিষয়টি নিয়ে খোঁজ খবর শুরু করে দিল্লি পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ। চলতি বছরের নভেম্বরে ওই কিশোরীকে খোঁজ পাওয়া যায়। ওই কিশোরীর মদতে একটি গোপন ডেরা থেকে সোনুকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

তদন্তে পুলিশ জানতে পারে, দিল্লি ছাড়াও উত্তরপ্রদেশ ও হরিয়ানায় ছড়িয়ে রয়েছে সোনুর ব্যবসা। গ্রেফতার করার পর সোনুর বিরুদ্ধে ধর্ষণ, অপহরণ, শিশু নির্যাতন ও পকসো আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।