কোভিড পরিস্থিতিতে কুলিক পক্ষীনিবাসে বাড়ল পাখির সংখ্যা

207

দীপঙ্কর মিত্র, রায়গঞ্জ: দীর্ঘ ৬ মাস পর রাজ্য সরকারের নির্দেশে ২ অক্টোবর রায়গঞ্জের কুলিক পক্ষীনিবাস খুলে দেওয়া হয়েছে পর্যটকদের জন্য। থার্মাল স্ক্রিনিংয়ের পাশাপাশি হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করার পর পর্যটকদের ভিতরে ঢুকতে দিচ্ছেন বনকর্মীরা। এশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম এই পক্ষীনিবাস উপভোগ করার জন্য স্থানীয়দের পাশাপাশি বাইরের পর্যটকদের ভিড় থাকলেও অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার তা কমেছে ৫০ শতাংশ। তবে বিভিন্ন প্রজাতির পাখির সংখ্যা এবারে যথেষ্টই বেড়েছে।

বন দপ্তরের রেঞ্জ অফিসার প্রমিলা লামা এবং বিট অফিসার বরুণকুমার সাহা কোভিড পরিস্থিতিতে পর্যটকেরদের জন্য বিভিন্ন নির্দেশিকার কথা জানান। প্রমিলা লামা বলেন, ২ অক্টোবর সরকারি নির্দেশিকা মেনে কুলিক পক্ষীনিবাস খুলে দেওয়া হয়েছে। কোভিড পরিস্থিতির জন্য থার্মাল স্ক্রিনিংয়ের মাধ্যমে শরীরের তাপমাত্রা মেপে এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার দেওয়ার পর পর্যটকদের ভিতরে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে। অবশ্যই মুখে মাস্ক থাকতে হবে। এবছর কোভিডের কারণে পর্যটকের সংখ্যা অনেকটাই কম, তবে পাখির সংখ্যা এবারে বেশি।

- Advertisement -

ফরেস্ট বিট অফিসার বরুণকুমার সাহা জানান, কোভিডের কারণে এবারে গড়ে প্রতিদিন ৯০ থেকে ১০০ জন পর্যটক আসছেন। প্রত্যেককে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পক্ষীনিবাসের ভিতরে ঢোকাচ্ছেন বন দপ্তরের কর্মীরা। শনিবার পক্ষীনিবাসে খুদে পর্যটকদের পাশাপাশি ছাত্র-ছাত্রী ও যুবক-যুবতীরা ভিড় জমিয়েছিলেন। প্রত্যেকেই কুলিক পক্ষীনিবাসের সুন্দর পরিবেশ ও পাখির কোলাহল দেখে উল্লাস প্রকাশ করেছেন।