ভ্যাকসিন কীভাবে মিলবে, অন্ধকারে নার্সিংহোমগুলি

67

শিলিগুড়ি : ভ্যাকসিন নিয়ে এখনও পুরোপুরি অন্ধকারে শিলিগুড়ির বেসরকারি হাসপাতাল এবং নার্সিংহোমগুলো। সরকার পুরোপুরি হাত তুলে দেওয়ায় এবং তারা কোথা থেকে ভ্যাকসিন পাবে, কী দামে তাদের ভ্যাকসিন কিনতে হবে, এসব নিয়ে অনিশ্চয়তায় রয়েছে নার্সিংহোমগুলি। সোমবার রাজ্যের এক স্বাস্থ্যকর্তা বিভিন্ন নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্স করেন। সেখানেও এই বিষয়ে কোনও নিশ্চিত কিছু জানানো হয়নি। তবে, এক বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য দপ্তর জানিয়েছে, বেসরকারি হাসপাতাল এবং নার্সিংহোমগুলি ইচ্ছামতো দাম নিতে পারবে না। ভ্যাকসিনের দাম হাসপাতালের বাইরে বড় হরফে লিখে রাখতে হবে। দার্জিলিংয়ের উপ মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক (৩) ডাঃ সংযুক্তা লিউ বলেন, এখনও কোনও কিছুই স্পষ্ট নয়। তবে, স্বাস্থ্য দপ্তর থেকে এবার বেসরকারি ক্ষেত্রের কোনও দায়িত্ব নেওয়া হবে না বলেই জানানো হয়েছে। সম্ভবত বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারী সংস্থার সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করে ভ্যাকসিন কিনতে হবে।

সরকারি হাসপাতালের পাশাপাশি গত মার্চ মাস থেকে বেসরকারি হাসপাতাল এবং নার্সিংহোমগুলিতে করোনার ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে। শিলিগুড়ির ১৮টি বেসরকারি হাসপাতাল এবং নার্সিংহোম ইতিমধ্যেই বহু মানুষকে ভ্যাকসিন দিয়েছে। কিন্তু আগামী মাস থেকে আর এই বেসরকারি হাসপাতাল এবং নার্সিংহোমকে সরকার থেকে ভ্যাকসিন সরবরাহ করা হবে না। শুধু তাই নয়, বেসরকারি হাসপাতালগুলির হাতে যে ভ্যাকসিন রয়েছে তা ৩০ এপ্রিলের মধ্যে ফেরত দিতে বলা হয়েছে। শিলিগুড়ির বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিংহোমগুলি অবশ্য জানিয়েছে, তাদের হাতে ভ্যাকসিন মজুত নেই। ফলে ফেরত দেওয়ার কোনও বিষয় আসছে না। কিন্তু মে মাস থেকে কোন পথে, কীভাবে, ভ্যাকসিন কিনতে হবে, তা বোঝা যাচ্ছে না। কেননা জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরও সরাসরি কিছু বলতে পারছে না। অথচ প্রতিদিনই ভ্যাকসিনের জন্য প্রচুর টেলিফোন আসছে, প্রচুর মানুষ ভ্যাকসিনের জন্য আসছেন। কিন্তু তাঁদের কিছুই বলা যাচ্ছে না।

- Advertisement -

সোমবার সন্ধ্যায় ন্যাশনাল হেলথ মিশনের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ডঃ সৌমিত্র মোহন রাজ্যের বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতাল এবং নার্সিংহোমগুলিকে নিয়ে ভিডিও কনফারেন্স করেছেন। সেখানে প্রতিটি বেসরকারি হাসপাতাল কর্তপক্ষের একটাই বক্তব্য বারবার এসেছে যে, আমরা ভ্যাকসিন কীভাবে পাব? নার্সিংহোমগুলির দাবি, ওই ভিডিও কনফারেন্সে ডঃ সৌমিত্র মোহনও এব্যাপারে বিস্তারিত কিছু জানাতে পারেননি। তিনি বলেছেন, অপেক্ষা করুন। রাজ্যের এক স্বাস্থ্যকর্তা বলেন, বেসরকারি হাসপাতাল এবং নার্সিংহোমগুলিকে সরাসরি কোউইন অ্যাপের মাধ্যমে ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী সংস্থার কাছে আবেদন করতে হবে। সেই সংস্থার নিয়ম মেনে ভ্যাকসিনের দাম আগাম জমা দিয়ে তবেই ভ্যাকসিন নিতে হবে বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে। দু-তিনদিনের মধ্যেই বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে যাবে।