সিভিক ভলান্টিয়ারের মারে বৃদ্ধর মৃত্যুর অভিযোগ

295

সামসী: টিকার লাইনে দাঁড়িয়ে সিভিক ভলান্টিয়ারের মারে এক বৃদ্ধর মৃত্যুর অভিযোগ উঠল। বৃহস্পতিবার বিকেলে চাঁচল ২ ব্লকের ধানগাড়া-বিষণপুর হাইমাদ্রাসায় ঘটনাটি ঘটেছে। মৃতের নাম আরজাউল হক (৬৭), বাড়ি এলাঙ্গি গ্রামে। যদিও মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করেছে পুলিশ। এদিকে, বৃহস্পতিবার রাতে মশালদহ হাসপাতালে মৃতদেহ নিয়ে বিক্ষোভ দেখান মৃতের পরিবারের লোকজন ও এলাঙ্গি গ্রামের বাসিন্দারা। পুলিশ ঘটনার তদন্ত করছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন ধানগাড়া-বিষণপুর হাইমাদ্রাসায় করোনার টিকাকরণ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। টিকা নিতে কয়েক হাজার মানুষ সেখানে ভিড় করে। ভিড় সামলানোর জন্য মোতায়েন ছিলেন কয়েকজন সিভিক ভলান্টিয়ার। আরজাউলও এদিন টিকার লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন। অভিযোগ, লাইনে পিছনে দাঁড়ানো ধানগাড়া গ্রামের কয়েকজন বাসিন্দাকে অন্যায়ভাবে আগে টিকা নেওয়ার সুযোগ করে দিচ্ছিলেন সিভিক ভলান্টিয়াররা। বিষয়টি এলাঙ্গি গ্রামের বাসিন্দা আরজাউলের চোখে পড়ে। তিনি এর প্রতিবাদ করেন। এনিয়ে টিকার লাইনে দাঁড়ানো ধানগাড়া ও এলাঙ্গি গ্রামের বাসিন্দাদের মধ্যে বচসা বাধে। সিভিক ভলান্টিয়াররা তাঁদের থামানোর চেষ্টা করেন। এরই মধ্যে এক সিভিক ভলান্টিয়ার লাঠিচার্জ করেন বলে অভিযোগ। লাঠির আঘাতে ঘটনাস্থলেই জ্ঞান হারান বৃদ্ধ আরজাউল। স্থানীয় বাসিন্দারা তাঁকে উদ্ধার করে পাশের মশালদহ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার জেরে এদিন এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। ঘটনাস্থলে গিয়েছে চাঁচল থানার পুলিশ। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

- Advertisement -

পরিবারের অভিযোগ, সিভিক ভলান্টিয়ারের মারে মৃত্যু হয়েছে আরজাউলের। বৃদ্ধের স্ত্রী তাজনুর বিবি ঘটনার উপযুক্ত তদন্ত করে দোষীর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। যদিও চাঁচলের এসডিপিও শুভেন্দু মণ্ডল মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তাঁর দাবি, টিকার লাইনে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ওই বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত করছে। এদিকে, স্থানীয় বাসিন্দারা এক সিভিক ভলান্টিয়ারকে মারধর করেছেন বলে পুলিশের তরফে পালটা অভিযোগ তোলা হয়েছে।