বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু বৃদ্ধার, বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের

74

রায়গঞ্জ: বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হল এক বৃদ্ধার। শুক্রবার সকালে মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে ইটাহার থানার কাপাসিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের কুরমানপুর গ্রামে। ঘটনার জেরে ১২ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় গ্রামবাসীরা। প্রায় দু’ঘণ্টা জাতীয় সড়ক অবরোধের জেরে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয় জাতীয় সড়কে। ঘটনাস্থলে ইটাহার থানার পুলিশ গিয়ে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে কথা বলে জাতীয় সড়ক অবরোধ মুক্ত করে। পরবর্তীতে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতার নাম আরতী দাস(৬৫)। ওই বৃদ্ধার দুই ছেলে ও চার মেয়ে রয়েছে। তারা প্রত্যেকে দিল্লিতে শ্রমিকের কাজে কর্মরত। ওই বৃদ্ধা একাই বাড়িতে থাকতেন। বৃহস্পতিবার রাতে ঝড়ে বিদ্যুতের খুঁটির তার ছিড়ে টিনের চালে পড়ে শর্ট-সার্কিট হয়ে যায়। এদিন সকালে দরজা খুলতেই বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয় বৃদ্ধার। এই ঘটনায় বিদ্যুৎ দপ্তরের কর্মীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে গ্রামবাসীরা। অভিযোগ, এক বছরে ওই এলাকায় একই ঘটনায় তিনজনের মৃত্যু হল।

- Advertisement -

মৃতার ভাই অপুল দাস বলেন, ‘আমার দিদির মৃত্যুর জন্য বিদ্যুৎ দপ্তর দায়ী। সেই কারণেই জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখানো হয়েছে।‘ রায়গঞ্জ থানার পুলিশ আধিকারিক বলেন, ‘এটি ইটাহারের ঘটনা ঘটলেও রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ওই বৃদ্ধাকে মৃত বলে ঘোষণা করেছে সেই কারণে রায়গঞ্জ থানায় একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করা হয়েছে।‘ পশ্চিমবঙ্গ বিদ্যুৎ বন্টন কোম্পানির আধিকারিক তথা জেনারেল ম্যানেজার উৎপল দাস বলেন, ‘কি কারনে এই ঘটনা ঘটল তা খোঁজ নিয়ে দেখছি।‘ কুরবানপুর গ্রাম সংসদের তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য রাজকুমার দাস বলেন, ‘আমার গ্রামে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে। এই মৃত্যুর জন্য বিদ্যুৎ দপ্তরের কর্মীরা দায়ী। বিষয়টি ইটাহার থানা পুলিশকে জানানো হয়েছে।‘