বালুরঘাট, ১৩ জুলাইঃ হাসপাতাল কর্মীদের দায়িত্বজ্ঞানহীনতায় রাতভর বহির্বিভাগে আটকে থাকলেন এক বৃদ্ধ রোগী। শুক্রবার রাতভর অন্ধকারে এবং অনাহারে পড়ে থেকে ৭৮ বছর বয়সী বৃদ্ধ প্রবল অসুস্থ হয়ে পড়লেন। ইতিমধ্যেই হাসপাতাল কতৃপক্ষের ভূমিকা নিয়ে সংশ্লিষ্ট মহলে প্রশ্ন উঠেছে। শনিবার তাকে স্থানীয় বাসিন্দারা হাসপাতালে ভর্তি করান। সেখানেই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার পাগলিগঞ্জ উদয়পুর গ্রামের বাসিন্দা নিবারণ মন্ডল (৭৬) এর চিকিৎসা চলছে।

জানা গিয়েছে, বেশ কিছুদিন ধরেই ওই বৃদ্ধ লিভারের অসুখে ভুগছিলেন। শুক্রবার বালুরঘাট বহির্বিভাগে তিনি চিকিৎসা করাতে আসেন। বহির্বিভাগের ১৪ নম্বর ঘরের সামনে বেশ কিছুক্ষণ অপেক্ষা করার পর অসুস্থতার কারণে তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। এরপর ওই রাতেই জ্ঞান ফিরলেও, অন্ধকারে বহির্বিভাগের ভেতরেই তিনি বন্দি হয়ে থাকেন। ওই বৃদ্ধ জানিয়েছে, বারবার জানালার পাশে গিয়ে চিৎকার করে অনেককে ডাকলেও সাড়া মেলেনি। শনিবার ঝড়ুদার ঘর পরিষ্কার করতে গিয়ে চমকে বৃদ্ধকে দেখে। এরপরই ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাসপাতাল চত্বরে চাঞ্চল্য ছড়ায়। প্রশ্ন উঠেছে, তবে কি করছিলেন নিরাপত্তারক্ষীরা আর কোথায় বা ছিলেন হাসপাতাল কর্মীরা? পাশাপাশি ওই বৃদ্ধের পরিবারের লোকও খোঁজ নেয়নি বলে জানা গিয়েছে।

যদিও এদিন এলাকার কিছু ব্যক্তি মিলে বৃদ্ধকে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যান। পরে তাকে বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। বর্তমানে তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে খবর।

আরো খবরঃ সেলফি তুলতে গিয়ে মৃত্যু!