গেমস আয়োজনে বাধ্য করা হচ্ছে জাপানকে

টোকিও : করোনা সংক্রমণের মধ্যে অলিম্পিক আয়োজনের জন্য জাপানকে বাধ্য করা হচ্ছে। বিস্ফোরক মন্তব্য আয়োজক কমিটির সদস্য তথা অলিম্পিকে ব্রোঞ্জজয়ী জুডোকা কাওরি ইয়ামাগুচি। বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলার জন্য অ্যাথলিটদের কাছে আবেদনও জানিয়েছেন তিনি।

১৯৮৮ সালে সিওল অলিম্পিকে ডেমস্ট্রেশন ইভেন্ট হিসেবে জুডো যোগ করা হয়। সেখানেই ব্রোঞ্জ জেতেন কাওরি। আয়োজক কমিটির এই সদস্যের মতে, এখন অলিম্পিক আয়োজন অর্থহীন। শুধুমাত্র দেখানোর জন্য গেমস হবে। আমার মতে, আমরা গেমস বাতিল করার সুযোগ পেছনে ফেলে এসেছি। কারণ এখন বাতিলের সিদ্ধান্ত নিলে সমস্যা আরও বাড়বে। একইসঙ্গে তাঁর দাবি, আমাদের এমন কোনায় ঠেলে দেওয়া হয়েছে যে গেমস আয়োজন ছাড়া কোনও পথ নেই। আমরা আয়োজন করলেও সমস্যায় পড়ব, আয়োজন না করলেও একই ফল হবে।

- Advertisement -

জাপানে অলিম্পিক আয়োজন নিয়ে সাধারণ মানুষ থেকে চিকিৎসক, বিভিন্ন অংশ থেকে বিরোধীতা করা হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে কাওরির মন্তব্য, অলিম্পিক আয়োজন নিয়ে নাগরিকদের একটা বড় অংশ উদ্বিগ্ন, প্রতিবাদী। এই পরিস্থিতিতেও সরকার, স্থানীয় আয়োজক কমিটি এবং আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির কর্তারা প্রকাশ্যে মুখ খুলছেন না। বিশেষত আইওসির কাছে জাপানের নাগরিকদের বক্তব্যের কোনও গুরুত্ব নেই। কাদের জন্য এবং কেন করোনা সংক্রমণের মধ্যেও অলিম্পিক আয়োজন করা হচ্ছে, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।

পরিস্থিতি নিয়ে অ্যাথলিটরা আইওসিকে প্রশ্ন করুক, চাইছেন কাওরি। তিনি বলেন, এটাই অ্যাথলিটদের কাছে সেরা সুযোগ। ওরা মানুষের জন্য কিছু করতে পারে। আগে মানুষ খোলামনে ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও ক্রীড়াবিদদের সমর্থন জানাতেন। অ্যাথলিটরাই পারবে সেই পরিস্থিতি ফেরাতে। এর আগে অবশ্য বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে জাপান সরকার, স্থানীয় আয়োজক কমিটি এবং আইওসি কর্তারা ২৩ জুলাই থেকে অলিম্পিক আয়োজনের বিষয়ে আশ্বাস দিয়েছেন।