সময়ে টোকিও অলিম্পিক নিয়ে আশাবাদী আয়োজকরা

টোকিও : করোনা পরিস্থিতি যাই হোক না কেন, টোকিওতেই অলিম্পিক হবে। মঙ্গলবার এক সাক্ষাৎকারে একথা জানিয়েছেন গেমসের আয়োজক কমিটির সভাপতি ইওশিরো মোরি।

করোনার জন্য জাপানে অলিম্পিক হওয়া নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। সম্প্রতি এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, টোকিওর বাসিন্দাদের একটা বড় অংশই করোনাকালে গেমস আয়োজনের বিপক্ষে। এমনকি জাপান চলতি বছরের পরিবর্তে ২০৩২ সালে অলিম্পিক আয়োজনের দাবি জানাতে পারে বলেও বিভিন্ন সূত্রে দাবি করা হয়। যদিও যাবতীয় জল্পনা উড়িয়ে জাপানে সময়ে অলিম্পিক হবে বলে আয়োজকরা দাবি জানিয়েছেন।

- Advertisement -

এই বিষয়ে মোরি বলেছেন, করোনা সংক্রমণের পরিস্থিতি যেমনই হোক, আমরাই অলিম্পিক আয়োজন করবো। গেমস আয়োজনের জন্য আমরা নতুন ভাবে পরিকল্পনা করছি। এখন আর আমরা আয়োজন করবো কি না তা নিয়ে আলোচনার মানে নেই। এবার দেখার আমরা কীভাবে এটা করতে পারি। অলিম্পিক আয়োজনে নতুন পদক্ষেপ করার জন্য এটাই সেরা সময় বলে জানিয়েছেন তিনি।

গেমস আয়োজন করা নিয়ে আশাবাদী সেদেশের অলিম্পিক বিষয়ক মন্ত্রী তথা প্রাক্তন অলিম্পিয়ান সেইকো হাশিমোতো। বলেছেন, টোকিও অলিম্পিক আয়োজনের মাধ্যমে আমরা সারা বিশ্বের একতার প্রমাণ দিতে পারব। পাশাপাশি জাপান যে বিশ্বের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে ভূমিকা নিতে পারে, সেই বার্তাও দেওয়া যাবে। এর আগে বিভিন্ন সময়ে জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইওশিহিদে সুগাও সময়ে গেমস আয়োজনের কথা বলেছেন।

তবে টোকিওর করোনা পরিস্থিতি একেবারেই গেমস আয়োজনের পক্ষে নয়। সংক্রমণ ঠেকাতে ৭ মার্চ পর্যন্ত টোকিও সহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় জরুরী অবস্থা জারি করা হয়েছে। গেমসে সংক্রমণ এড়াতে অ্যাথলিটদের গেমস ভিলেজে একপ্রকার বন্দি রাখার পরিকল্পনাও নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির প্রধান টমাস বাখ ইঙ্গিত দিয়েছেন, প্রয়োজনে অলিম্পিকে দর্শক প্রবেশের ছাড়পত্র দেওয়া হবে না।