বর্ষশেষের প্রাকমুহূর্তে কোভিডবিধি মেনে বড়দিনে মাতল উত্তরবঙ্গ

167

উত্তরবঙ্গ ব্যুরো: গোটা দেশের মতো উত্তরবঙ্গবাসীও মেতে উঠল বড়দিনের আনন্দে। বর্ষশেষের প্রাকমুহূর্তে কোভিডবিধি মেনে জেলার বিভিন্ন চার্চগুলোতেও বড়দিনের সাজ ছিল নজরকাড়ার মতো। করোনাকালে তরাই থেকে ডুয়ার্স সকলেই ছিল বন্দিদশায়। আর চলতি বছরের বড়দিন যেন পিপাসুর কাছে জলপূর্ণ পাত্রের সমান!

বর্ষশেষের প্রাকমুহূর্তে কোভিডবিধি মেনে বড়দিনে মাতল উত্তরবঙ্গ| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India
বড়দিনে মেতে উঠেছে আলিপুরদুয়ারবাসী

শুক্রবার আলিপুরদুয়ার জংশন এবং শহর সংলগ্ন দমনপুর এলাকার চার্চগুলো সেজে উঠেছে। ক্রাইস্ট দ্য কিং চার্চ, কালভারি চার্চ অন্যান্য চার্চগুলো খুব সুন্দরভাবে সেজে উঠেছে। বৃহস্পতিবার রাতে এবং শুক্রবার সকালে খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী মানুষেরা প্রেয়ার করতে যেমন দেখা যায়, তেমনই ছোট ছোট খুদেদের চার্চে সান্তাক্লস সেজেও আসতেও দেখা যায়। তবে অন্যবারের তুলনায় এবছর মানুষের ভিড় তেমন লক্ষ্য করা যায়নি। পুলিশি নিরাপত্তাও ছিল চার্চগুলোতে। পাশাপাশি বড়দিন উপলক্ষে রাজাভাতখাওয়াতে বক্সা টাইগার রিজার্ভের গেটে বেলা যতো গড়িয়েছে ভিড় ততটাই লক্ষ্য করা গিয়েছে। তবে অন্যবারের তুলনায় বড়দিনে এবছর পিকনিক স্পটগুলোতে ভিড় একদমই লক্ষ্য করা যায়নি।

- Advertisement -
বর্ষশেষের প্রাকমুহূর্তে কোভিডবিধি মেনে বড়দিনে মাতল উত্তরবঙ্গ| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India
বড়দিনের মাতলেন রায়গঞ্জের প্রজাপিতা ব্রক্ষ্মাকুমারী ঈশ্বরীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সদস্য ও সদস্যারা।

এদিন সকালে রায়গঞ্জের সোহারই গ্রামের দু:স্থ শিশুদের নিয়ে মাতলেন প্রজাপিতা ব্রক্ষ্মাকুমারী ঈশ্বরীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সদস্য ও সদস্যারা। এদিন বিশ্ববিদ্যালয়ের সদস্যরা খুদেদের সঙ্গে নিয়ে কেক কাটার পাশাপাশি প্রত্যেকের হাতে কেক ও চকলেট তুলে দেন।

বর্ষশেষের প্রাকমুহূর্তে কোভিডবিধি মেনে বড়দিনে মাতল উত্তরবঙ্গ| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India
বড়দিনে মেটেলি ব্লকের পর্যটনকেন্দ্র মূর্তিতে পর্যটকদের ভিড় উপচে পড়ার দৃশ্য উঠে এল।

অন্যদিকে, মেটেলি ব্লকের পর্যটনকেন্দ্র মূর্তিতে পর্যটকদের ভিড় উপচে পড়ার দৃশ্য উঠে এল। এতে স্বাভাবিকভাবেই খুশি মূর্তি ব্যবসায়ী সহ টোটোচালকেরা। শুক্রবার সকাল থেকেই বিভিন্ন এলাকা থেকে পর্যটক আসতে থাকে মূর্তিতে। মূর্তির প্রাকৃতিক সৌন্দর্যকে এদিন উপভোগ করতে দেখা যায় পর্যটকদের। মূর্তি নদীতে নেমে সেলফি তুলতে থাকে পর্যটকরা।

শিলিগুড়ি থেকে আসা সম্পা কর্মকার বলেন, ‘বড়োদিনের ছুটি উপলক্ষে মূর্তিতে ঘুড়তে এসেছি।দারুন আনন্দ করলাম।’ মূর্তি জিপসি ওনার্স এসোসিয়েসনের পরিচালক মজিদুল আলম বলেন, ‘বহুদিন পর ফের মূর্তিতে পর্যটকদের ঢল নামল। এদিন মূর্তি টিকিট কউন্ডার থেকে গরুমারার সব কটি নজর মিনারের টিকিট ছিল ফুল।’