বছরের শেষ দিন চেনা ছন্দে দেখা গেল মাইথনকে

160

রাজা বন্দ্যোপাধ্যায়, আসানসোল: বছরের শেষ দিন চেনা ছন্দে দেখা গেলো মাইথনকে। করোনার সংশয় কাটিয়ে আসানসোল সহ দূর দূরান্ত থেকে মানুষ একদিনের জন্য আনন্দ নিতে মাইথনে আসেন। করোনার জন্য বিগত বছরগুলির তুলনায় এবার মাইথনে পর্যটকদের ভিড় ছিল অনেকটাই কম। তবে এবার বছরের শেষ দিনে পর্যটকদের কাছে বাড়তি পাওনা ছিল জল ছাড়ার দৃশ্য। রবিশস্য চাষের জন্য ইতিমধ্যেই মাইথন ও পাঞ্চেত থেকে জল ছাড়া শুরু হয়েছে।

এবার পূর্ব বর্ধমান জেলায় ৭৮ হাজার একর জমিতে ধান চাষ হবে। পশ্চিম বর্ধমান জেলায় ৩ হাজার ১৫০ একর জমিতে চাষ হবে। মাইথন থেকে মোট ৪ হাজার ৪০০ একর ফুট জল ছাড়া হয়েছে। ডিভিসির চিফ ইঞ্জিনিয়ার সত্যব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘বোরো চাষের জন্য ৩ লক্ষ ৯১ হাজার একর ফুট ও রবি চাষের জন্য ৭০ হাজার একর ফুট জল ডিভিসি থেকে ছাড়া হবে।’

- Advertisement -

বছরের শেষ দিন চেনা ছন্দে দেখা গেল মাইথনকে| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

এদিন মাইথনে পুলিশের কড়া নজরদারি ছিল। পর্যটকদের ভিড় অন্য বছরের তুলনায় কম বলে জানান মাঝিরা। পুলিশের তরফে পর্যটকদের মাস্ক বিতরণ করা হয়। সালানপুরের বিডিও অদিতি বসু জানান, পিকনিক স্পটে বারবার পুলিশের তরফে টহল দেওয়া হয়। মাইকিংয়ের মাধ্যমে পর্যটকদের লাইফ জ্যাকেট ছাড়া নৌকাবিহার না করার জন্য বার্তা দেওয়া হয়েছে। এবার সেখানে মাদক ও তামাক জাতীয় দ্রব্য ব্যবহার পুরোপুরিভাবে নিষিদ্ধ রয়েছে। এদিন মাইথন পিকনিক স্পটের মূল স্বাগতম গেটের উদ্বোধন করা হয়। ফিতে কেটে উদ্বোধন করেন জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ মহম্মদ আরমান। একইভাবে বছর শেষের দিনে আসানসোল সহ পশ্চিম বর্ধমান জেলার অন্যান্য পিকনিক স্পটগুলিতে ভিড় ছিল। তবে করোনা পরিস্থিতির জেরে তা অন্যবারের তুলনায় কম।