একই দিনে বৃদ্ধার পচাগলা দেহ ও সদ্যোজাতের দেহ উদ্ধার, চাঞ্চল্য চাঁচলে

692

সামসী: এক বৃদ্ধার পচাগলা দেহ উদ্ধার ঘিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। রবিবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে চাঁচল থানার বিধানসরণী এলাকায়। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মৃত ওই বৃদ্ধার নাম চাঁদনী রাম (৬৪)। বাড়ির শোবার ঘর ওই বৃদ্ধার পচাগলা মৃত দেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই বৃদ্ধা একাই একটি ছোট ঘরে থাকতেন। তার স্বামী বহুদিন আগেই তাকে ছেড়ে চলে যান। বৃদ্ধার কোনো সন্তান নেই। পাড়া পড়শিদের সাথে তেমন কোনো সম্পর্ক রাখতেননা তিনি। এদিন সকালে বৃদ্ধার বাড়ির পাশের প্রতিবেশীরা ফুল তুলতে গেলে দুর্গন্ধ পায়। এরপর বহু লোক জমায়েত হয় বৃদ্ধার বাড়ির সামনে। খবর দেওয়া হয় চাঁচল থানায়।

- Advertisement -

খবর পেয়ে চাঁচল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে বৃদ্ধার বাড়ির দরজা ভেঙে দেখতে পান ঘরের মেঝেতে একদম পচা গলা মৃতদেহ পড়ে রয়েছে। এরপরে পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। তবে এটি খুন না আত্মহত্যা এ নিয়ে ধন্দে রয়েছে চাঁচল থানার পুলিশ। দীর্ঘদিন ধরেই ওই বৃদ্ধা অসুস্থ ছিলেন। অসুস্থতার কারণেই হয়তো তিনি মারা গেছেন বলে দাবি প্রতিবেশীদের। তবে মৃতদেহটি এক সপ্তাহের বেশি হবে। তাই পচন ধরেছে।

চাঁচল থানার আইসি সুকুমার ঘোষ বলেন, ‘পুলিশ খবর পেয়ে বৃদ্ধার বাড়ি থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছেন। খুন না আত্মহত্যা তা ময়নাতদন্তের পরই জানা যাবে।‘

এদিকে ঝোপ জঙ্গল থেকে এক সদ‍্যোজাত কন‍্যা সন্তানের মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।রবিবার দুপুরে চাঁচল থানার মকদমপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের গৌড়িয়া গ্রামের ঝোপ জঙ্গল থেকে ওই সদ্যোজাত কন্যা সন্তানের দেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রথমে গ্রামবাসীরা ওই সদ‍্যোজাতের মৃতদেহটি খোলামেলা ভাবে পড়ে থাকতে দেখেন। দেহের পাশেই ছিল দুটি প্লাস্টিকের ক‍্যারিব‍্যাগ। ঘটনায় গ্রামবাসীরা হতবাক হয়ে যান। খবর দেওয়া হয় চাঁচল থানার পুলিশকে। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে ঝোপ জঙ্গলে পড়ে থাকা সদ্যোজাত কন্যাসন্তানের দেহ উদ্ধার করেন। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান,ওই সদ‍্যোজাতের বয়স প্রায় আটমাস মতো হবে। তাঁরা আরও বলেন, এলাকার কোনো যুবক যুবতী অবৈধ সম্পর্কের ফল এটা।

বাসিন্দাদের আরও অনুমান কোনো গুনধর বাবা-মা কন্যাসন্তান হওয়ায় সদ‍্যোজাতটিকে ফেলে গেছে। এই প্রশ্ন বাসিন্দাদের একাংশের। এধরনের নিকৃষ্ট মানের কাজ ঘটতে পারে চাঁচলের বুকে তা কেউই ভাবতেই পারছেন না। সদ‍্যোজাতের জন্মদাতার উপর নিন্দার ঝড় বইছে এলাকায়। দোষীদের উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানান চাঁচলের আপামর জনসাধারণ। চাঁচল থানার পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছেন।