নাবালিকাকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে গ্রেপ্তার যুবক, নির্যাতিতার চিকিৎসা চলছে

344

ফাঁসিদেওয়া, ৮ জুনঃ নাবালিকাকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে ১ যুবককে গ্রেপ্তার হল। সোমবার ঘোষপুকুর ফাঁড়ির পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে৷ ধৃত মুকেশ কুমার (২৮) পেশায় ট্রাক চালক। সে বিহার রাজ্যের তেত্রিয়া থানার ঘেগবা এলাকার বাসিন্দা। অভিযোগ, যুবক ১৭ বছর বয়সি আদিবাসী এক নাবালিকাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। রবিবার যুবক ঘোষপুকুর ট্রাক টার্মিনাসে ট্রাক রেখে বন্ধুর সঙ্গে ফুলবাড়ি গিয়েছিল। মদ্যপ অবস্থায় ঘোষপুকুর ফেরার পথে ফাঁসিদেওয়া ব্লকের বাসিন্দা ওই নাবালিকার বাড়িতে জল খেতে যায়। সেখানেই নাবালিকার ওপর জোরজবরদস্তি করতে থাকে। নাবালিকা বাঁধা দিতে গেলেই, অভিযুক্ত যুবক নাবালিকার গালে, গলায় এবং হাতে কামড় দেয়। এমনকি নাবলিকার পরণের জামা-কাপড় ছিড়ে দেয় বলে অভিযোগ। নাবালিকার বাম হাত মুচড়ে, তাঁর শরীরের ওপর উঠে যায়। ফলে নাবালিকার হাতেও চোট লাগে। নাবালিকা তাঁর জেঠুর সঙ্গে থাকত। সে সময় তিনিও বাড়িতে ছিলেন না। নাবালিকার চিৎকার শুনে গ্রামবাসীরা ছুঁটে আসেন। খবর পেয়ে ঘোষপুকুর ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে। পুলিশ সূত্রের খবর, ধৃতের বিরুদ্ধে পকসো আইনের ৮ ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। এদিন ধৃতকে শিলিগুড়ি মহকুমা আদালতে পাঠানো হয়েছে। এদিকে, পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত ঘটনার কথা স্বীকার করেছে। সে জানিয়েছে, মদ্যপ অবস্থায় হুঁশ হারিয়েছিল। তাই সে এমন ঘটনা ঘটিয়েছে। নির্যাতিতা এখন একটি মিশনারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তবে, ঘটনার পর থেকেই আতঙ্কে ওই নাবালিকার মুখের কথা একপ্রকার বন্ধ হয়ে গিয়েছে। নির্যাতিতা নাবালিকা, তাঁর মা এবং পরিবারের সকল সদস্যরা দোষীর উপযুক্ত শাস্তির দাবি করেছেন। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।