ঋণ পাইয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার

554

বর্ধমান, ৬ সেপ্টেম্বরঃ ঋণ পাইয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে এক ব্যক্তির কাছ থেকে মাোটা টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার হল এক যুবক। ধৃতের নাম দেবজিৎ দেবনাথ। সে হুগলির জেলার মগরা থানার বাঁশবেড়িয়ার বাসিন্দা। পূর্ব বর্ধমানের রায়না থানার পুলিশ শনিবার রাতে বাড়ি থেকে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে। পুলিশের দাবি অভিযোগকারী কার্তিক ঘোষের টাকা ধৃত দেবজিতের অ্যাকাউন্টেই জমা পড়েছে। পুলিশ তদন্তের স্বার্থে রবিবার ধৃতকে ৫ দিনের পুলিশ হেপাজতের আর্জি জানিয়ে বর্ধমান আদালতে পেশ করে। ধৃতের আইনজীবী ও সরকারি আইনজীবীর সওয়াল শুনে সপ্তাহে দু‘দিন তদন্তকারী অফিসারের কাছে হাজিরা দেওয়ার শর্তে ভারপ্রাপ্ত সিজেএম কল্লোল ঘোষ ধৃতের জামিন মঞ্জুর করেন। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত অভিযুক্ত আদালতের এলাকা ছেড়ে যেতে পারবে না বলে নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রতারিত কার্তিক ঘোষের বাড়ি রায়না থানার হরিপুর গ্রামে। গত ৭ এপ্রিল সকাল ১০টা নাগাদ তিনি একটি ফোন কল পান। তাতে একটি বেসরকারি ঋণদান সংস্থা তাঁকে ঋণ দিতে চায় বলে জানানো হয়। কার্তিক বাবু রাজি হন। ঋণের জন্য কিছু টাকা দিতে হবে বলে কার্তিকবাবুকে ফোনে জানানো হয়। সেই মতো তিনি কয়েক দফায় দু’টি অ্যাকাউন্টে ৯১ হাজার ৭০০ টাকা পাঠান। তারপর বেশ কিছুদিন কেটে গেলেও, তাঁর ঋণ মঞ্জুর হয়নি। তিনি টাকাও ফেরত পাননি। প্রতারিত হয়েছেন বুঝতে পেরে কার্তিক বাবু রায়না থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনার কিনারায় সাইবার থানার সাহায্য নেয় রায়না থানার পুলিশ। তাতে টাকা হাতানোয় দেবজিতের জড়িত থাকার বিষয়টি উঠে আসে। তার অ্যাকাউন্টেই হাতিয়ে নেওয়া টাকা জমা পড়েছে বলে জানতে পারে সাইবার থানা। এরপর শনিবার রাতে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করেছে।

- Advertisement -