পুরাতন মালদায় গুলি চলার ঘটনায় গ্রেপ্তার ১

308

পুরাতন মালদা: পুরাতন মালদার সাহাপুরে গুলি চলার ঘটনার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই মূল অভিযুক্ত মনোজ ঘোষকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। অপর এক অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।

পুরোনো শত্রুতাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার বিকেলে পুরাতন মালদার সাহাপুর সেতুমোড়ের কাছে সংঘর্ষের মাঝে গুলি চলে। ঘটনায় ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার হয়েছে মূল অভিযুক্ত গানপাড়ার বাসিন্দা মনোজ ঘোষ। রাতভর তল্লাশি চালিয়ে শনিবার ভোররাতে বাড়ির কাছেই গোপন ডেরা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে মালদা থানার পুলিশ। তবে অপর অভিযুক্ত মনোজের ভাই রাজীবের খোঁজ মেলেনি। মনোজকে জিজ্ঞাসাবাদ করে রাজীবের সন্ধান পাওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।

- Advertisement -

শনিবার ধৃতকে আদালতে পেশ করে নিজেদের হেপাজতে নেওয়ার আবেদন জানিয়েছে পুলিশ। মনোজকে জেরা করলে ঘটনায় ব্যবহৃত আগ্নেয়াস্ত্র ও কার্তুজের হদিস পাওয়া যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে পুলিশ সূত্রে খবর, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুরোনো শত্রুতার কথাই উঠে এসেছে।

জানা গিয়েছে, সাহাপুর এলাকায় অপরাধ জগতে ক্ষমতা কায়েম করা নিয়ে মৃণাল মণ্ডল ওরফে বিট্টু এবং মনোজের দলবলের দীর্ঘদিন ধরেই রেষারেষি চলছিল। বছর দুয়েক আগে মনোজকে মারধর করার অভিযোগ ওঠে বিট্টুর বিরুদ্ধে। এরপর একাধিকবার একে অপরের বিরুদ্ধে চড়াও হওয়ার ঘটনা ঘটে। জানা গিয়েছে, অপরাধ জগতের কর্তৃত্ব কায়েম করা নিয়ে সম্প্রতি ফের দু’জনের মধ্যে রেষারেষি শুরু হয়। দিন কয়েক আগে এই নিয়ে দু’পক্ষের তুমুল বিতণ্ডা হয়। শুক্রবার মাছ ধরে ফেরার পথে সাহাপুরের বাড়ির কাছে বিট্টুকে নাগালের মধ্যে পেয়ে যায় মনোজ। সে সময় ভাই রাজীব ঘোষকে সঙ্গে নিয়ে বিট্টুর ওপর আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় মনোজ। সূত্র মারফত খবর, বিট্টুকে লক্ষ্য করে প্রায় ছয় রাউন্ড গুলি চালায় তারা। তবে লক্ষ্যভ্রষ্ট হওয়ায় হাত ও পিঠ ছুঁয়ে বেরিয়ে যায় গুলি। আহত বিট্টুর চিকিৎসা চলছে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। এদিকে ঘটনার পর এদিনও থমথমে ছিল সাহাপুর সেতুমোড় এলাকা। পুলিশি টহলদারি ছিল গোটা পুরাতন মালদা এলাকায়।