সীমান্তে ব্যক্তির গুলিবিদ্ধ মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য

933

ফাঁসিদেওয়া, ১৯ নভেম্বরঃ ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী এলাকায় এক ব্যক্তির গুলিবিদ্ধ মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় ব্যপক চাঞ্চল্য ছড়াল। বৃহস্পতিবার ফাঁসিদেওয়া ব্লকের চটহাট বাঁশগাও কিশমত গ্রাম পঞ্চায়েতের মুড়িখাওয়া সংলগ্ন পূর্ব বান্দরজুলি গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। ওই গ্রামের বাসিন্দা মৃতের নাম মহম্মদ জমিরুল আক্তার (৪০)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই ব্যক্তি পেশায় কৃষক ছিলেন। মঙ্গলবার থেকেই ওই ব্যক্তি নিখোঁজ ছিলেন। পরিবারের সদস্যরা খোঁজাখুঁজি করে জমরুল বাবুর খোঁজ না পেয়ে বুধবার ফাঁসিদেওয়া থানায় একটি নিখোঁজ সংক্রান্ত অভিযোগ দায়ের করেন। এরপর এদিন স্থানীয়রা সীমান্তে কাঁটাতারের ভেতরে একটি মৃতদেহ দেখতে পান। বিষয়টি সীমান্তরক্ষী বাহিনী এবং পুলিশকে জানানো হয়। মৃতের পরিবারের সদস্যরা মৃতদেহ সনাক্ত করেন।

- Advertisement -

এরপর সীমান্তরক্ষী বাহিনীর উচ্চপদস্থ আধিকারিক এবং পুলিশ আধিকারিকদের উপস্থিতিতে মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। স্থানীয়দের অভিযোগ, ওই ব্যক্তির শরীরে ২ জায়গায় গুলি লাগার ক্ষত রয়েছে। এদিকে, সীমান্ত এলাকায় ওই ব্যক্তিকে কারা গুলি করল তা নিয়ে ধোঁয়াশা দেখা দিয়েছে। স্থানীয়রা বিষয়টি নিয়ে যথেষ্ট উদ্বিগ্ন রয়েছেন।

এদিকে, গুলি চালানোর ঘটনায় সীমান্তরক্ষী বাহিনীরও কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি। মৃতের পরিবারের সদস্যরা শোকগ্রস্থ হয়ে এবিষয়ে কথা বলতে নারাজ। সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সহযোগিতায় এদিন মৃতদেহ উদ্ধারের সেটি ময়নাতদন্তের জন্য উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

অন্যদিকে, ওই সীমান্ত দিয়ে এর আগে একাধিকবার গোরু পাচারের অভিযোগ উঠে এসেছিল। বছরখানেক আগে ওই এলাকায় ভারতীয় সীমান্তরক্ষীর চালানো গুলিতে এক স্থানীয় জখম হয়েছিলেন। তবে, এঘটনায় গোরু পাচারের কোনও যোগ নেই বলে দাবি করেছেন স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রাক্তন সদস্য মহম্মদ সামিরুল। তাঁর অভিযোগ, ওই ব্যক্তি যখন মঙ্গলবার ভোরে জমিতে কাজ করতে গিয়েছিলেন সেসময় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের জওয়ানেরা ওই ব্যক্তিকে গুলি করে থাকতে পারে। তবে, বিষয়টি নিয়ে তিনি সঠিক তদন্তের আর্জি জানিয়েছেন।

ডিসএসপি (গ্রামীণ) অচিন্ত্য গুপ্ত জানিয়েছেন, মৃতের শরীরে ক্ষত চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে। তবে, ওই ব্যক্তি গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গিয়েছিলেন কিনা তা এখনই বলা সম্ভব নয়। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে এলেই বিষয়টি স্পষ্ট হবে। তিনি আরও বলেন, ইতিমধ্যেই পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।