লাখিমপুরের ঘটনায় মৃত আরও ১

252
ছবি : সংগৃহীত

লখনউ: উত্তরপ্রদেশের লাখিমপুর খেরিতে রবিবার অশান্তির ঘটনায় বাড়ল মৃত্যুর সংখ্যা। সোমবার সকালে হাসপাতালে মৃত্যু হল এক সাংবাদিকের। মৃত ওই সাংবাদিকের নাম রমন কাশ্যপ। গতকাল আহত হয়েছিলেন তিনি। এই নিয়ে আন্দোলনরত কৃষক সহ বেশ কয়েকজনের মৃত্যু হয়েছে।

গতকালের ঘটনায় উত্তপ্ত রয়েছে লাখিমপুর খেরি। এদিন খেরিতে পৌঁছোতে বাধার সম্মুখীন হতে হয় একাধিক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের। সীতাপুর জেলার হরগাঁওয়ে পৌঁছোনোর পর থামানো হয় কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াংকা গান্ধিকে। সেখানে এক মহিলা কনস্টেবলের সঙ্গে বাগ-বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন তিনি। গ্রেপ্তারির ওয়ারেন্ট দেখতে চান। শেষ খবর অনুযায়ী, পুলিশ তাঁকে হেপাজতে নিয়ে জেলা পিএসি অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এদিকে এই ঘটনার পরই বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন কংগ্রেস সমর্থকরা। অন্যদিকে, ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেলের বিমান লখনউ বিমানবন্দরে না নামতে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। একই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে পঞ্জাবের উপমুখ্যমন্ত্রী সুখজিন্দর এস রাধওয়ারের বিমানের ক্ষেত্রেও। এছাড়া একাধিক বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতাদেরও বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে। রবিবার সকাল থেকেই খেরিতে তিনটি হাইওয়ে আটকে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন কৃষকরা। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ইন্টারনেট। টিকুনিয়াতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অজয় মিশ্র ও তাঁর ছেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন কৃষকরা।

- Advertisement -

প্রসঙ্গত, রবিবার থেকেই উত্তপ্ত রয়েছে লাখিমপুরের খেরি। উপমুখ্যমন্ত্রী কেশবপ্রসাদ মৌর্য ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অজয় মিশ্রের আসা নিয়ে বিক্ষোভে শামিল হন কৃষকরা। অভিযোগ, সেইসময় একটি গাড়ি কৃষকদের ধাক্কা দেয়। এরপরই অশান্ত হয়ে ওঠে পরিস্থিতি।