ডাক্তারি পরীক্ষায় ২৫ হাজার, ময়নাতদন্তে ৫ হাজার! ধর্ষিতাকেই দেওয়ার নিদান পাকিস্তানে

135
ছবি: প্রতীকী

পেশওয়ার: আজব দেশের আজব নিদান! এখন থেকে পাকিস্তানে কোনও ধর্ষিতা মহিলাকে নিজের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গ্যাঁটের টাকা খরচ করতে হবে। সম্প্রতি সেদেশের পুলিশের তরফে এমনটাই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে পেশওয়ারের এক ধর্ষিতা মহিলাকে।

পাকিস্তানের খাইবার মেডিক্যাল কলেজের ফরেন্সিক বিভাগের তরফে সেদেশের এক নির্যাতিতার সমস্ত ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ২৫ হাজার টাকা চাওয়া হয়েছে। ওই মহিলার পরিবার জানিয়েছে, অর্থের অপ্রতুলতার কারণে পাকিস্তানে অভিযোগকারীর থেকেই তদন্তের সমস্ত ব্যয়ভার আদায় করার ঘটনা খুবই নিয়মিত ঘটনা। শুধু ডাক্তারি পরীক্ষাই নয়, তদন্ত চালাতে গেলে পুলিশের যাতায়াতের খরচ, জ্বালানি তেলের খরচও চাওয়া হয় অভিযোগকারীর পরিবারের কাছে। এদিন নির্যাতিতা আরও জানান, কোনও অভিযোগ নিয়ে পুলিশের কাছে গেলে তা সাদরে গ্রহণ করা হয় না। অনেক সময় মৃতদেহ সংরক্ষণের জন্য ফ্রিজারের ভাড়া নেওয়া হয় অভিযোগকারীর থেকেই। একদিনের ভাড়া ১৫০০ টাকা। ডিএনএ টেস্টের জন্য নেওয়া হয় ১৮ হাজার টাকা।

- Advertisement -

সেদেশের স্থানীয় সমাজকর্মীর অভিযোগ, পেশওয়ার জেলায় ময়নাতদন্তের জন্য ৫ হাজার টাকা নেওয়া হয়। অন্য জেলা স্থানান্তর করলে সেই দামটাই বেড়ে দাঁড়ায় ২৫ হাজার টাকা। পিতৃত্বের পরীক্ষা করতে দাম পড়ে ২০ হাজার টাকা। এই সবটাই দিতে হয় অভিযোগকারীকেই। ড্রাগ পরীক্ষার জন্য ৩ হাজার, অ্যালকোহল পরীক্ষার জন্য দিতে হয় ২ হাজার টাকা। শরীরে বিষ প্রয়োগ হয়েছিল কিনা তা পরীক্ষা করতে গুণতে হয় ৪ হাজার টাকা।