আক্রমণের ভয়ে অভিনন্দনকে ছাড়তে বাধ্য পাকিস্তান

1349

নয়াদিল্লি: ভারতের বায়ুসেনার পাইলট অভিনন্দন বর্তমানকে ছেড়ে দেওয়ার সময় পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান মুখে শান্তি ও সৌজন্যতার কথা বলেছিলেন। অভিনন্দনকে ছাড়ার জন্য পাকিস্তানের উপর আন্তর্জাতিক চাপ যে ছিল, তা কারও অজানা নয়। সেই আন্তর্জাতিক চাপের কাছে নতিস্বীকার করেই কি ইসলামাবাদ তড়িঘড়ি অভিনন্দনকে মুক্তি দিয়েছিলেন নাকি অন্য কোনও স্বার্থ ছিল পাকিস্তানের তা অধরাই ছিল এতদিন।

বুধবার পাকিস্তানের এক সাংসদ পার্লামেন্টে দাবি করেন, ভারতের আক্রমণের ভয়েই পাকিস্তান সরকার‌ মুক্তি দেয় ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে। এদিন জাতীয় সংসদে এক ভাষণে পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ নেতা আয়াজ সাদিক বলেন, ‘অভিনন্দন বন্দি হওয়ার পর পাক-বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি এক গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে বলেছিলেন, ‘অভিনন্দন বর্তমানকে মুক্তি না দিলে, ভারত পাকিস্তানের উপর হামলা করবে।‘

- Advertisement -

এরপর তিনি আশঙ্কার সুরে বলেছিলেন, ওই দিন রাত ৯টার মধ্যে ভারত প্রত্যাঘাত করবে। পিপিপি ও পিএমএলএন-এর নেতারা ছাড়াও সেনা প্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়ার উপস্থিতিতে বৈঠক করেন পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি। পাক বিদেশমন্ত্রী বৈঠকে বলেন অভিনন্দকে মুক্তি দিতে হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে পাকিস্তানি হামলা রুখতে গিয়ে পাকিস্তানের হাতে ধরা পড়েন অভিনন্দন বর্তমান। তার ঠিক ১২ দিন আগে পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলায় সিআরপিএফের ৪০ জওয়ান শহিদ হন। পাকিস্তানকে যোগ্য জবাব দিতে ভোররাতের অন্ধকারে বালাকোটে, পাকিস্তানের মাটিতে ঢুকে এয়ারস্ট্রাইক চালিয়েছিল বায়ুসেনা। তার পরদিন পাক যুদ্ধবিমানকে ধাওয়া করতে গিয়ে বিমান ভেঙে ধরা পড়েছিলেন অভিনন্দন। তিন দিন তাঁকে হেপাজতে রেখেছিল পাকিস্তান।

বালাকোট অভিযানের পর, ২৭ ফেব্রুয়ারি সকাল ১১টা নাগাদ ভারতের আকাশসীমা লঙ্ঘন করে ঢুকে পড়েছিল পাকিস্তানের ২৪টি বিমান। ওই বিমানে ছিল পাকিস্তানের ৮টি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান। ভারতীয় বায়ুসেনার মিগ-২১ বাইসন, সুখোই-৩০এমকেআই ও মিরাজ-২০০০ যুদ্ধবিমান পালটা ধাওয়া করে। পাকিস্তানের একটি এফ-১৬ গুঁড়িয়ে দেন অভিনন্দন। তবে তাঁর বিমানকেও গুলি করে নামানো হয়।

সেদিন বেলা সাড়ে ৩টে নাগাদ ঘোষণা করা হয়, ভারতীয় বায়ুসেনার একটি মিগ-২১ যুদ্ধবিমান ও তার পাইলটের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। পাকিস্তান এরপর দাবি করে, তাদের হেপাজতে রয়েছেন ভারতের উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান। সেদিনই সন্ধ্যায় অভিনন্দন বর্তমানের একটি ভিডিও সামনে আসে। সেখানে পাকিস্তানি সেনার জেরার মুখে অভিনন্দনকে বলতে শোনা যায়, ‘আমি এই প্রশ্নের জবাব দেওয়ার এক্তিয়ার রাখি না।’ এর পর দেশ জুড়ে উইং কমান্ডরের সাহসিকতা বাহবা কুড়োয়।