উদয়ের বাড়ি গেলেন পরেশ

143

মেখলিগঞ্জ: কোচবিহার জেলার মেখলিগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রেও তৃণমূল কংগ্রেসের গোষ্ঠী কোন্দলের ঘটনা অজানা নয় কারোরই। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে প্রার্থী নিয়েও যে দলের একাংশের মনে অসন্তোষ দানা বেঁধেছে সেটাও আন্দাজ করতে পারছেন দলের নেতাদের অনেকে। উল্লেখ্য, এই কেন্দ্রে এবার দলের বিদায়ী বিধায়ক অর্ঘ্য রায় প্রধানকে টিকিট দেয়নি দল। তাঁর জায়গায় প্রার্থী হয়েছেন রাজ্যের প্রাক্তন খাদ্যমন্ত্রী পরেশচন্দ্র অধিকারী। যা নিয়ে ক্ষুব্ধ অর্ঘ্যবাবুর অনুগামীরা। আর সেটা বুঝতে পেরেই বুঝেশুনে পদক্ষেপ করার চেষ্টা করছেন দলের নেতাদের একাংশ। মুখে সরাসরি স্বীকার না করলেও তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের বিষয়টি জানা আছে প্রার্থী পরেশেরও। এই অবস্থায় তিনিও ঠান্ডামাথায় সকলকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করার চেষ্টা করছেন। তাই সোমবার কলকাতা থেকে ফিরেই তিনি চলে যান দলের মেখলিগঞ্জ ব্লক সভাপতি উদয় রায়ের বাড়িতে। সেখানে তিনি উদয়বাবুর সঙ্গে বৈঠক করেন।

দলের তরফে পরেশবাবুর নাম প্রার্থী হিসেবে ঘোষণার পরেই তাঁর উপস্থিতিতে দলের বিভিন্ন নেতা-কর্মীদের নিয়ে মেখলিগঞ্জ শহরে সম্প্রতি একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সেই বৈঠকে দলের ব্লক সভাপতি উদয় রায়ের অনুপস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। উদয়বাবুও ওই বৈঠক নিয়ে প্রশ্ন তুলে অসন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন। এরপরেই সোমবার পরেশবাবু উদয় রায়ের বাড়ি গিয়ে দেখা করেন। প্রার্থী নিয়ে যে দলের কিছু অংশের মানুষের মনে ক্ষোভ রয়েছে সেকথা অবশ্য স্বীকার করে নিয়েছেন উদয়বাবু। তিনি বলেন, ‘প্রার্থী নিয়ে কি কারণে একাংশের মনে অসন্তোষ রয়েছে সেটা অধিকাংশেরই জানা আছে। তার কাছে এসেও অনেকে ক্ষোভ উগড়ে দিচ্ছেন। তবে দলের ব্লক সভাপতি হিসেবে সমস্ত অসন্তোষ কিংবা ক্ষোভ দূর করার চেষ্টা করা হচ্ছে। দলীয় প্রার্থীকে জেতাতে সকলে মিলে একসঙ্গে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। এদিন পরেশবাবু আমার সঙ্গে দেখা করেছেন। রাজ্য নেতৃত্ব তাঁকে কি নির্দেশে দিয়েছেন সেটাও জানিয়েছেন। দলের উচ্চ নেতৃত্বের নির্দেশ মেনে খুব শীঘ্রই ব্লক কমিটির তরফে সংশ্লিষ্ট সকলকে নিয়ে একটি বৈঠক ডাকা হবে। সেই বৈঠকে নির্বাচন সংক্রান্ত নানা বিষয়ে আলোচনা করে রণকৌশল ঠিক করে সেই অনুযায়ী নির্বাচনের কাজকর্ম করা হবে।’

- Advertisement -

উল্লেখ্য, অর্ঘ্যবাবুর ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত উদয়বাবুও। তাই প্রার্থী ঘোষণার পর উদয়বাবুর সঙ্গে পরেশবাবুর বৈঠকের বিষয়টি খুবই তাৎপর্যপূর্ণ ছিল বলে দলেরও অনেকে মনে করেছিলেন। প্রার্থী ঘোষণা হওয়ার পর এদিনই প্রথম দলীয় প্রার্থী পরেশচন্দ্র অধিকারীর সঙ্গে উদয় রায়ের বৈঠক হয় বলেও দলীয় সূত্রের খবর। পরেশবাবু অবশ্য বলেন, ‘এখানেও কোনওরকম গোষ্ঠী কোন্দল নেই। আমি সকলকে সঙ্গে নিয়েই কাজকর্ম করে চলেছি। সাধারণ মানুষের তরফেও ব্যাপক সাড়া মিলছে।’