আন্তর্জাতিক চেকপোস্টের বেহাল রাস্তায় দুর্ভোগে নিত্য যাত্রীরা

185

চ্যাংরাবান্ধা: কোচবিহার জেলার চ্যাংরাবান্ধা স্থলবন্দরে আন্তর্জাতিক ইমিগ্রেশন চেকপোস্টে যাবার রাস্তা পাকা করার বিষয়ে অবশেষে উদ্যোগ নেওয়া হল। এই রাস্তাটির জন্য চ্যাংরাবান্ধা উন্নয়ন পর্ষদের তরফে ইতিমধ্যেই পরিকল্পনা তৈরি করে রাজ্য সরকারের পূর্ত দপ্তরে পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে পরিকল্পনা অনুমোদন পেয়ে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ হলেই কাজ শুরু করা হবে। পেভার ব্লক দিয়ে এই রাস্তা তৈরি করা হবে।

স্থানীয়দের একাংশের অভিযোগ, রাস্তাটি দীর্ঘদিন ধরে বেহাল হয়ে পড়েছে। দিনের পর দিন সীমান্তের গুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তাটি বেহাল হয়ে পরে থাকলেও এবিষয়ে বারংবার আশ্বাস মিললেও এখনও অবধি কাজ শুরু করার বিষয়ে কারোর কোনও হেলদোল নেই।

- Advertisement -

তাদের বক্তব্য, আন্তর্জাতিক দিক দিয়েও এই রাস্তাটির যথেষ্ট গুরুত্ব রয়েছে। এখান দিয়ে স্থানীয় মানুষজনের পাশাপাশি, সীমান্তরক্ষী বাহিনী এবং দেশ বিদেশের মানুষজনও যাতায়াত করেন। তাই রাস্তাটি সংস্কার খুবই জরুরী। কিন্তু এই রাস্তাটি বেহাল হয়ে পড়ে আছে। রাস্তার উপর থেকে পিচের আস্তরণ উঠে গিয়েছে। বেশিরভাগ জায়গাতেই রাস্তার দুই ধার ভাঙতে ভাঙতে সরু হয়ে গিয়েছে। পাথর পিচ উঠে গিয়ে রাস্তার কঙ্কালসার অবস্থা হয়ে গিয়েছে। বর্ষাকালে জল কাদার জন্য চলাচলে সমস্যা আরও বেড়ে যায়। সব জেনে শুনেও গুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তাটি সারাইয়ের বিষয়ে কেউ এখনও ময়দানে নামছেন না বলে অভিযোগ।

স্থানীয়দের মধ্যে প্রবীর সাহা, শেখর বিশ্বাস বলেন, ‘দীর্ঘদিন থেকে রাস্তাটি বেহাল অবস্থায় পড়ে রয়েছে। যার কারণে চলাচলে সমস্যা হচ্ছে। তা সত্বেও প্রশাসনের কোনও উদ্যোগ নেই।’

বেহাল রাস্তা নিয়ে বাসিন্দাদের মনে যে ক্ষোভ রয়েছে, সেকথা স্বীকার করে নিয়েছেন স্থানীয় অর্থাৎ ১৫ নং সংসদ এলাকার গ্রামপঞ্চায়েত সদস্য সুনির্মল গুহ। তিনি অবশ্য বলেন, ’চ্যাংরাবান্ধা উন্নয়ন পর্ষদের তরফে এই রাস্তার বিষয়ে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে খবর রয়েছে। তাই শীঘ্র সমস্যা মেটার বিষয়েও আশাবাদী।‘

চ্যাংরাবান্ধা উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পরেশচন্দ্র অধিকারি অবশ্য জানিয়েছেন, ’চ্যাংরাবান্ধা বাজার এলাকায় ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি রাস্তার কাজ করা হয়েছে। কয়েকটি কাজ চলছে।ওই রাস্তাটির বিষয়েও তিনি অবগত রয়েছেন। এছাড়াও আরও বেশ কিছু পরিকল্পনাও রয়েছে।‘