বিয়েতে উপস্থিত ৯৫ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণের হদিস, মৃত বর

1099

পাটনা: করোনা সংক্রমণ রুখতে সরকারের তরফে জারি করা নিয়মকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে বিয়েবাড়ির অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হল বিহারে। আর সেই বিয়েবাড়ির অনুষ্ঠানেই ৯০ জনেরও বেশি অতিথির শরীরে মিলল করোনা সংক্রমণের হদিস। এমনকি ৩০ বছর বয়সি গুরুগ্রাম নিবাসী সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার বরও বিয়ের দু’দিন পর মারা যান। করোনায় আক্রান্ত হয়েই তাঁর মৃত্যু হয় বলে অনেকের অনুমান, কারণ তাঁর শরীরেও করোনার উপসর্গ দেখা দিয়েছিল। তা সত্ত্বেও তাঁর করোনা পরীক্ষা না করেই দেহ সাধারণ নিয়মেই অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া করা হয় বলে অভিযোগ।

গত ১৫ জুন বিহারের পাটনা থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে পালিগঞ্জের একটি গ্রামে বিয়ের অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। জানা গিয়েছে, বিয়ে উপলক্ষ্যে গত ১২ মে নিজের গ্রাম দীহপালিতে আসেন ওই যুবক। এরপরই নাকি তাঁর মধ্যে করোনার উপসর্গ দেখা দেয়। কিন্তু বিষয়টি গুরুত্ব না দিয়ে বিয়ে নিয়েই ব্যস্ত থাকে তাঁর পরিবার।

- Advertisement -

বিয়ের ঠিক দু’দিন পরই বরের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে মৃত্যু হয় তাঁর। এরপরই প্রশাসনের সন্দেহ হওয়ায় বিয়েতে উপস্থিত সকলের করোনা পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বিয়েতে উপস্থিত ১৫ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। প্রশাসন খোঁজখবর নেওয়া শুরু করলে পরে তাঁদের সংস্পর্শে আসা আরও ৮০ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণের হদিস মেলে। তবে মৃত বরের করোনা পরীক্ষা করা সম্ভব হয়নি। প্রশাসনকে না জানিয়েই পরিবারের তরফে তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হয়। তবে নববধূর করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে বলে জানা গিয়েছে।

এদিকে যেখানে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে এরকম সংকটজনক অবস্থায় বারবার সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে বলা হচ্ছে, এমনকি বিয়ে বা কোনও অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে সরকারের তরফে কিছু নিয়ম বেধে দেওয়া হয়েছে, ৫০ জনের বেশি অতিথি আমন্ত্রণ করা যাবে না বলা সত্ত্বেও তারপরও দুই পরিবারের তরফে কীভাবে কোভিড নির্দেশিকাকে অমান্য করা হল বলে অভিযোগ করেছে জেলা প্রশাসন।