নব্যভারতীয়দের দাবি পূরণ, ধরলা নদীতে তৈরি হচ্ছে পাকা সেতু

198

চ্যাংরাবান্ধা: অবশেষে পাকা সেতু পেতে চলেছেন মেখলিগঞ্জ ব্লকের চ্যাংরাবান্ধা গ্রাম পঞ্চায়েতের পানিশালা এলাকায় স্থায়ীভাবে আশ্রয় নেওয়া নব্যভারতীয়রা। প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের তরফে প্রায় ১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে পানিশালা তারারবাড়ি থেকে দেবীকলোনি পর্যন্ত ধরলা নদীর ওপর এই পাকা সেতুটি তৈরি করা হবে।

এই প্রসঙ্গে মেখলিগঞ্জের বিধায়ক অর্ঘ্য রায় প্রধান জানান, শনিবার চ্যাংরাবান্ধায় ধরলা নদীর ওপর পাকা সেতুর শিলান্যাস করা হবে। এর জন্য মঞ্চও তৈরি হচ্ছে। সেতু তৈরির খবরে নব্যভারতীয়দের পাশাপাশি উচ্ছ্বসিত নদীর দু’পাড়ে বসবাসকারী মানুষ। এর আগেও পাকা সেতুর দাবিতে আন্দোলন করেছিলেন নব্যভারতীয়রা। সেইসময় তাঁদের পাকা সেতুর প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়। কিন্তু সেতুর কাজ শুরু না হওয়ায় তাঁদের মনে ব্যাপক ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছিল। বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির কাছেও এটা ভোট প্রচারের ইস্যু ছিল। বিধানসভা ভোটের আগে সেতুর কাজের শিলাবিন্যাস হওয়ায় ওই এলাকার শাসক দলের নেতা-কর্মীদের কাছেও ভোট প্রচারে অনেকটা সুবিধা হবে বলেও মনে করা হচ্ছে। তৃণমূল কংগ্রেসের মেখলিগঞ্জ ব্লক সভাপতি উদয় রায় জানান, উন্নয়নই যে বর্তমান রাজ্য সরকারের অন্যতম লক্ষ্য সেটা এই পাকা সেতু প্রমাণ করছে। শনিবার এই সেতুর শিলান্যাস করবেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। এছাড়াও এলাকার বিধায়ক অর্ঘ্য রায় প্রধান, চ্যাংরাবান্ধা উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পরেশচন্দ্র অধিকারী, কোচবিহারের জেলাশাসক পবন কাদিয়ান প্রমুখ উপস্থিত থাকবেন।

- Advertisement -