ঘরে সিবিআই-বাইরে জনগণ, একাই লড়ছেন মুখ্যমন্ত্রী: দিলীপ

129

রায়গঞ্জ ব্যুরো: বিজেপির পরিবর্তন যাত্রা এবার হেমতাবাদে। বুধবার বিজেপির পরিবর্তন যাত্রা রায়গঞ্জ শহরের শিলিগুড়ি মোড় থেকে হেমতাবাদে পৌঁছোয়। রাস্তার দুই ধারে শহর ও গ্রামের বাসিন্দারা ফুল ছিটিয়ে অভ্যর্থনা জানায়। এদিনের যাত্রায় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী, বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ী সহ অন্যান্যরা। পরিবর্তন যাত্রার রথ রায়গঞ্জ শহরের ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক হয়ে শিলিগুড়ি মোড়ে রাজ্য সড়কে ঢুকতেই কর্মী-সমর্থকেরা বাইক মিছিল করে হেমতাবাদের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়।

পরিবর্তন যাত্রা থেকে এদিন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘পাহাড় থেকে সাগর সর্বত্রই পরিবর্তনের হাওয়া বইছে। ফলে বাংলার পরিবর্তন হবে পুনর্নির্মাণ হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘নির্বাচনে যাতে কোন হিংসা না হয় নির্বাচন কমিশনকে সেই ব্যাপারে সজাগ থাকতে অনুরোধ করা হয়েছে।’ এদিন হেমতাবাদ রাজ্য সড়ক জুড়ে পরিবর্তন যাত্রায় কয়েক হাজার বিজেপির কর্মীদের পাশাপাশি হাজির ছিলেন মতুয়া সম্প্রদায়ের সদস্যরাও। হুলুধ্বনি, শাঁখ বাজিয়ে সম্বর্ধনা জানানো হয়।

- Advertisement -

অন্যদিকে, বেলা গড়াতেই কালিয়াগঞ্জের মাটিতে পা রাখে পরিবর্তন যাত্রার রথ। কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা অন্তর্গত মদনপুর এলাকায় বিশাল বাইক মিছিলের মধ্য দিয়ে শহরে প্রবেশ করে পরিবর্তন রথ। কালিয়াগঞ্জের স্থানীয় বিবেকানন্দ মোড়ে মুখোশ শিল্পী, ঢাক ঢোল, তাসা সহকারে সাঁওতাল রমনির নৃত্যের মাধ্যমে পুষ্প বৃষ্টির মাধ্যমে পরিবর্তন রথে উপস্থিত বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা এলাকার সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরীকে বরণ করে নেয় স্থানীয় বিজেপি কর্মী ও নেতৃত্ব। ধীরে ধীরে এই রথ কালিয়াগঞ্জ শহর পরিক্রমা করে শহরের দক্ষিণ প্রান্তে অবস্থীত শিমুল তলা ময়দানে এসে উপস্থিত হয়। সেখানে জনসভা করেন দিলীপ ঘোষ। এদিন চাঁচাছোলা ভাষায় তৃণমূলকে আক্রমণ  করেন রাজ্য সভাপতি। তিনি বলেন, ‘ঘরে সিবিআই এবং বাইরে জনগনের সাথে লড়ছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। সিবিআই আসার আগে তিনি অভিষেকের বাড়িতে গিয়ে সিবিআইয়ের আধিকারিকদের কাছে কীভাবে মিথ্যা কথা বলতে হয় তা শিখিয়ে দিয়েছেন।’ বলেন, ‘রাজ্যের অর্থমন্ত্রী মিথ্যা কথা বলতে অভ্যস্ত নন তাই দিদিমনি নিজেই এবার মিথ্যার ঝুলি নিয়ে বাজেট পরিবেশন করেছেন। মানুষ  হাসছেন। এইবার ভোট শান্তিতে হবে। আপনারা নির্ভয়ে ভোট দেবেন। এইবার বিজেপি বাংলায় ২০০ আসন নিয়ে মানুষের আশির্বাদে ক্ষমতায় আসতে চলেছে।’

এদিকে, রায়গঞ্জে পরিবর্তন যাত্রার পৌঁছোতেই ফের ‘রণংদেহী’ বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এদিন তিনি বলেন,’যারা মুখে প্রতিহিংসার কথা বলেন, তারা যে কতটা প্রতিহিংসাপরায়ন তা প্রমানিত হল।‘ তিনি বলেন, ‘রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা পিসিমনি ঢাল হিসেবে তাঁর বৌমাকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন, যা আগে পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের ক্ষেত্রেও করার চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর ঘরে সিবিআই ঢুকে গিয়েছে। কেউ বাঁচাতে পারবে না। ওই বাড়িতে গোরু পাচার, কয়লা পাচারের টাকা গিয়েছে।’ আরও বলেন, ‘রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী পুরো সরকারটাকে লাগিয়ে দিচ্ছেন দুর্নীতিগ্রস্তদের বাঁচাবার জন্য। এটা মুখ্যমন্ত্রীর কাজ নয়। যারা দাগী অপরাধী তাদের সামনে ঢাল হয়ে যেভাবে দাঁড়াচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী, তা ওনার শোভা পায় না।’