নেশা-পেশায় ভাটা, নেপথ্যে গুজব!

112

মেখলিগঞ্জ: ক’দিন আগেও কাজের মাঝে ফুরসৎ মিলতেই মাছ ধরতে ভিড় জমাতেন নদীর তীরে। কেউ নেশায় কেউ আবার পেশার তাগিদে। গ্রামাঞ্চলে এটা চেনা চিত্র। অন্যান্য গ্রামের ন্যায় কোচবিহার জেলার মেখলিগঞ্জ ব্লকের বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী তিস্তা, ধরলা, সানিয়াজানের মতো নদীগুলিতে প্রায় বছরভর সেই চিত্র দেখা যায়। তবে, বৈশাখের শেষ দিকে নদীর জল বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সেই ভিড় ক্রমেই বাড়তে শুরু করে। কেউ ছিপ হাতে ব্যস্ত হয়ে ওঠেন তো কেউ জাল ফেলতে। তবে এবছর সেই চেনা ছবি এক্কেবারে উধাও। নেপথ্যে গুজব।

হ্যাঁ, এটাই সত্যি। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, নদীতে মৃতদেহ ভেসে আসছে এই ‘গুজব’ চাউড় হতেই অনেকের মধ্যেই অনীহা দেখা গিয়েছে মাছ ধরার ক্ষেত্রে। তা সে নিছক নেশা হোক বা পেশা। গুজবে ভর করে আপাতত মাছ ধরা থেকে বিরত রয়েছেন অনেকেই। কাজল বিশ্বাস, বকুল মণ্ডলদের প্রশ্ন, কী হবে মাছ ধরে? বাজারে মাছের বিক্রি নেই। নদীতে মৃতদেহ ভাসার গুজব ছড়িয়ে পড়তেই মাছের চাহিদা তলানিতে ঠেকেছে। মাঝে কিছুদিন বড় মাছের বিক্রি কমতেই স্থানীয় নদীর মাছের চাহিদা বেড়েছিল যথেষ্ট। তবে গুজবের জেরে তাতে ভাটা পড়েছে।

- Advertisement -

অন্যদিকে, যারা নিছক শখের জেরে মাছ ধরতেন এতদিন তাঁরাও খানিকটা সরে দাঁড়িয়েছেন। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, প্রতিবছর এইসময় অনেককেই শখের বশে মাছ ধরতে দেখা যায়। তবে, গুজব চাউড় হতেই ভিড় এক্কেবারে নেই।