নিগমনগর ডাকঘরে গ্রাহকদের বিক্ষোভ

241

সঞ্জয় সরকার, দিনহাটা: ডাকঘরে জিরো ব্যালেন্সের অ্যাকাউন্ট খুলতে বেশি টাকা নেওয়ার অভিযোগে বিক্ষোভ দেখালেন গ্রাহকরা। মঙ্গলবার দিনহাটা মহকুমার নিগমনগর ডাকঘরে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গত কয়েকদিন ধরে নিগমনগর ডাকঘরে জিরো ব্যালেন্সের অ্যাকাউন্ট খোলার কাজ চলছে। অভিযোগ, অ্যাকাউন্ট খুলতে গ্রাহকপিছু ১২৫ টাকা করে নেওয়া হচ্ছে। যার ২৫ টাকা চার্জ হিসেবে ধার্য হচ্ছে এবং বাকি ১০০ টাকা গ্রাহকদের অ্যাকাউন্টে সরাসরি জমা পড়ছে।

- Advertisement -

আরও পড়ুন: র‍্যাশন দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতীকী অবস্থানে বিজেপি

অন্যদিনের মতো এদিনও ভোর থেকে ডাকঘরে অ্যাকাউন্ট খুলতে ভিড় জমান বহু মানুষ। অভিযোগ, এদিন সকাল ৯টা নাগাদ ডাকঘরের কর্মী দুলাল ভট্টাচার্য্য ডাকঘরের বাইরে অ্যাকাউন্ট খোলার কাজ শুরু করেন ও গ্রাহকদের কাছ থেকে ২২৫ টাকা দাবি করেন। এতে ক্ষব্ধ হয়ে গ্রাহকরা ডাকঘরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। পরে বেলা ১২টা নাগাদ সংশ্লিষ্ট এলাকার গ্রাম পুলিশ ও দিনহাটা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি সামাল দেয়।

নিগমনগর ডাকঘরে গ্রাহকদের বিক্ষোভ| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

গ্রাহক রাখালমারির বিজয় বর্মন, সাতকুড়ার দীপক বর্মন, সুনীতি রায় প্রমুখদের অভিযোগ, ‘ভোর থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে রয়েছি। অথচ ডাকঘরের ওই কর্মী ডাকঘর সংলগ্ন একটি দোকানের বাইরে কাজ শুরু করেন। যাঁরা ২২৫ টাকা করে দিচ্ছেন তাঁদের অ্যাকাউন্ট করা হচ্ছে। টাকা কেন বেশি নেওয়া হচ্ছে, সেটা জানতে চাইলেও কোনও উত্তর দেননি ওই কর্মী।’ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে সকাল থেকে বিক্ষোভ শুরু করেন গ্রাহকরা।

আরও পড়ুন: বাংলার পরিযায়ী শ্রমিকরা ফিরলেন, বাসের ব্যবস্থা করল রাজ্য সরকার

যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেন ডাকঘর কর্মী দুলাল ভট্টাচার্য্য। তিনি বলেন, ‘ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ মতোই বেশি টাকা নেওয়া হয়েছে। অতিরিক্ত টাকা গ্রাহকদের অ্যাকাউন্টেই ঢুকছে।’

নিগমনগরের পোস্ট মাস্টার পুলক ঘোষ বলেন, ‘জিরো ব্যালেন্সের অ্যাকাউন্ট খোলার বিষয়টি গ্রাহকদের বাড়িতে করার কথা। কিন্তু গ্রাহকরা ডাকঘরে ভিড় করছেন। তাই ডাকঘরেই কাজ করা হচ্ছিল। আজকের পর থেকে ওই কর্মচারি বাড়ি বাড়ি ঘুরে অ্যাকাউন্ট খুলবেন।’ বর্ধিত টাকা নেওয়ার নির্দেশিকা ডাকঘরে টাঙানো হবে বলে জানান পুলকবাবু।