শিলিগুড়িতে ভোট কমবে, রিপোর্ট সিপিএমের

657

শিলিগুড়ি, ২৪ এপ্রিলঃ শিলিগুড়ি পুরনিগম ও শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়ের পরেও সেই ভোট এবারের লোকসভার নির্বাচনে নিজেদের অনুকূলে ধরে রাখতে পারছে না সিপিএম। বিশেষ করে শিলিগুড়ি মহকুমার বাগডোগরা, নকশালবাড়ি, খড়িবাড়ি, ফাঁসিদেওয়া এলাকায় বিগত নির্বাচনগুলিতে সিপিএমের ঝুলিতে যে ভোট পড়েছিল, লোকসভার ভোটে তা আর পড়ছে না বলেই প্রাথমিকভাবে রিপোর্ট জমা পড়েছে। যাঁরা এবারের ভোটে পোলিং এজেন্ট ছিলেন, কিংবা যাঁরা ভোটকেন্দ্রের বাইরে দলীয় বুথে ডিউটি করেছেন, মূলত তাঁদের কাছ থেকেই এই রিপোর্ট পেয়েছে সিপিএম নেতৃত্ব। অন্যদিকে, লোকসভা ভোটের ফল কেমন হয়, তা দেখেই শিলিগুড়ি পুরনিগম ও মহকুমা পরিষদ দখল করতে ঝাঁপানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। একইভাবে লোকসভা ভোটের ফল ঘোষণার পরেই ফের শিলিগুড়ি শহর ও মহকুমাজুড়ে জনসংযোগ বাড়াতে ময়দান কামড়ে রাস্তায় নামছে সিপিএমও।

লোকসভা ভোটের আগেই সিপিএম নেতত্ব নীচুতলার কর্মীদের থেকে রিপোর্ট পেয়েছিল বিধানসভা, পুরভোট কিংবা মহকুমা পরিষদের মতো সমতলের ভোট লোকসভায় তাদের অনুকূলে পড়ছে না। তার অন্যতম কারণ, রাজ্যে সিপিএমের অবস্থা এমনিতেই ভালো নয়। বিধানসভা, পুরনিগম কিংবা মহকুমা পরিষদ ভোটে সমতলে সিপিএম ভালো ফল করলেও লোকসভা ভোটে যেহেতু পাহাড় একটা বড়ো ফ্যাক্টর, তাই এই আসনে জয়ের আশা দেখছেন না অতি বড়ো বামপন্থীও। তবুও সিপিএমের টার্গেট ছিল শিলিগুড়ি বিধানসভা এলাকা ও মহকুমার বাকি দুটি বিধানসভা এলাকায় অন্তত বিগত নির্বাচনগুলিতে তাদের প্রাপ্ত ভোট যাতে  লোকসভাতেও ধরে রাখা যায়। কিন্তু বাস্তব বলছে অন্য কথা। সিপিএম সূত্রেই খবর, বহু ভোটকেন্দ্রে বিজেপির পোলিং এজেন্ট হিসেবে কাজ করেছেন অনেক বাম এবং ছাত্র-যুব নেতা। শহরের অধিকাংশ বুথ ও গ্রামাঞ্চলের বুথগুলি থেকে পাওয়া খবরে জানা গিয়েছে, পরিস্থিতি এবার মোটেও তাদের অনুকূলে ছিল না। সেই রিপোর্ট থেকেই পরিষ্কার, তিনটি নির্বাচনে প্রাপ্ত ভোট এবার লোকসভা ভোটে ধরে রাখতে পারছে না সিপিএম। সিপিএমের দার্জিলিং জেলার সম্পাদক জীবেশ সরকার অবশ্য বলেন, এখনও সবটা স্টাডি করিনি। তবে বিগত লোকসভা ভোটের চাইতে ফলাফল ভালো হবে বলেই আশা করছি। বিগত নির্বাচনগুলিতে যে ভোট আমরা পেয়েছিলাম, তা ধরে রাখতে পারব বলেই মনে করছি।

এদিকে, বামেদের হাতে থাকা পুরনিগম এবং মহকুমা পরিষদ দখলের ক্ষেত্রে একাধিকবার এগিয়েও পিছিয়ে এসেছে তৃণমূল কংগ্রেস। কিন্তু লোকসভা ভোটের ফলাফল দেখে পুনরায় পুরনিগম এবং মহকুমা পরিষদ দখলের ব্যাপারে ঝাঁপাতে চাইছে রাজ্যের শাসকদল। শিলিগুড়ি সহ মহকুমার বাকি দুটি বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপি এক নম্বরে থাকলেও সিপিএমের ভোটপ্রাপ্তি কতটা, সেটাই দেখার বিষয়। তিনটি বিধানসভাতে সিপিএমকে তিন নম্বরে পাঠিয়ে দিতে পারলেই বাজিমাতের আশা তৃণমূলের।