তারুণ্যের জোশ বনাম ক্যাপ্টেন কুল

দুবাই : কী অদ্ভুত মিল!

দুই দলই আইপিএলের দ্বিতীয় পর্বে জোড়া জয় পেয়েছে। দুই দলই একই প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে প্রবল দাপট দেখিয়ে অনায়াসে ম্যাচ জিতেছে।

- Advertisement -

বিরাট কোহলির আরসিবি ও রোহিত শর্মার মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে কলকাতা নাইট রাইডার্স ও চেন্নাই সুপার কিংসের পারফরমেন্স দেখার পর চমকে গিয়েছে ক্রিকেটমহল। ইয়োন মরগ্যানের দলের ইউএসপি হিসেবে সামনে আসছে বরুণ চক্রবর্তী ও সুনীল নারায়ণের রহস্য স্পিন। দোসর হিসেবে রয়েছে ভেঙ্কটেশ আইয়ারের তারুণ্যের জোশ।

আর সিএসকের ইউএসপি তো বহুদিনই ক্যাপ্টেন কুল। মহেন্দ্র সিং ধোনি তাঁর দীর্ঘ অভিজ্ঞতা নিয়ে কাল অশ্বমেধের ঘোড়া হয়ে ওঠার ইঙ্গিত দেওয়া কেকেআরের সামনে বাধার প্রাচীর তুলতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। সঙ্গে রয়েছে রুতুরাজ গায়কোয়াড, ফাফ ডুপ্লেসি, ডোয়েন ব্র‌্যাভোদের ফর্ম। আর অদ্ভুতভাবে দুই দলের সামনেই জয়ের হ্যাটট্রিকের সুযোগও থাকছে কাল।

ইতিহাস ও পরিসংখ্যান বলছে, চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে কোনওদিনও সাবলীল নয় শাহরুখ খানের নাইটরা। ২১ এপ্রিল প্রতিযোগিতার প্রথম পর্বের ম্যাচেও সিএসকের বিরুদ্ধে ১৮ রানে হেরেছিল কেকেআর। যদিও মাঝের সময়ে কোচ ব্রেন্ডন ম্যাককুলামের পরামর্শে বদলে গিয়েছেন নাইটরা। কিছুই হারানোর নেই মানসিকতা থেকে ভয়ডরহীন ক্রিকেটের মাধ্যমে নিজেদের পারফরমেন্সকে ভিন্ন স্তরে নিয়ে গিয়েছেন শুভমান গিল, আন্দ্রে রাসেল, রাহুল ত্রিপাঠীরা।

যদিও নাইটদের ছন্দ ও ধারাবাহিকতা নিয়ে সিএসকে শিবির বিরাট চিন্তিত, এমন ভাবার কোনও কারণ নেই। গত রাতে কোহলিদের চূর্ণ করার পর ম্যাচের সেরা ব্র‌্যাভোর কথায় সেই ইঙ্গিত মিলেছে। তিনি বলেন, নিজেদের কাজ ও দায়িত্বটা জানি আমরা। দুর্দান্ত দলগত পারফরমেন্স করে চলেছি। বাকি প্রতিযোগিতায় এই ছন্দ ধরে রাখতে হবে আমাদের।

নাইটরাও নিজেদের দায়িত্ব সম্পর্কে ভালোরকম সচেতন। অধিনায়ক মরগ্যানের কথায়, দুটো জয় এসেছে। কিন্তু পথ চলার এখনও অনেক বাকি। আমাদের সতর্কভাবে এগোতে হবে। নাইট অধিনায়কের এমন আত্মবিশ্বাসের নেপথ্য কারণ, বোলারদের পাশে দলের ওপেনারদের স্বপ্নের ফর্ম। কুড়ির ক্রিকেটে দলের এই ছন্দ ধরে রাখাই এখন চ্যালেঞ্জ ক্যাপ্টেন মরগ্যানের জন্য।