পেট্রোল-ডিজেলের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি, প্রতিবাদে শামিল বাম-তৃণমূল

139

উত্তরবঙ্গ ব্যুরো: দিনদিন বেড়েই চলেছে পেট্রোল-ডিজেলের দাম। কোথাও দাম লিটার প্রতি ১০০ ছাড়িয়েছে। মঙ্গলবার উত্তরবঙ্গজুড়ে জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে পথে নামল রাজনৈতিক দলগুলি।

এদিন পুরাতন মালদার মঙ্গলবাড়ি এলাকায় পেট্রোল পাম্পে বিক্ষোভে শামিল হন পুরাতন মালদা এবং মালদা জেলা তৃণমূল যুব কংগ্রেস। এদিন চাঁচল এক বিডিও সমীরণ ভট্টাচার্য এবং মহকুমা শাসক সঞ্জয় পালকে এসইউসিআই-র চাঁচল আঞ্চলিক কমিটির তরফে ডেপুটেশন দেওয়া হয়৷

- Advertisement -

অন্যদিকে, ফালাকাটায়ও পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে তৃণমূল যুব কংগ্রেসের তরফে প্রতিবাদ জানানো হয়। শহরের রাজপথে সংগঠনের তরফে বিশাল মিছিল করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কুশপুতুল দাহ করা হয়। নেতাজি রোডে দলের ব্লক কার্যালয় থেকে থানা রোড, মেইনরোড, বাবুপাড়া হয়ে নতুন চৌপথিতে এসে প্রতিবাদ মিছিল শেষ হয়। পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে দায়ী করে বক্তব্য রাখেন যুব সংগঠনের ব্লক সভাপতি শুভব্রত দে, তৃণমূল কংগ্রেসের ব্লক সভাপতি সুভাষ রায় প্রমুখ।

অন্যদিকে, এদিন পেট্রোল, ডিজেল ও রান্নার গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি সহ বিভিন্ন দাবিতে পথ অবরোধে শামিল হয় এসইউসিআই দিনহাটার গোসানিমারি লোকাল কমিটি। এদিন দিনহাটার গোসানিমারি থেকে কোচবিহারগামী রাস্তায় গোসানিমারি হাট চৌপথিতে পথ অবরোধ করা হয়। পথ অবরোধ কর্মসূচির নেতৃত্বে ছিলেন সংগঠনের গোসানিমারি লোকাল কমিটির সম্পাদক পুলিনচন্দ্র রায়, এসইউসিআই কোচবিহার জেলা কমিটির সদস্য অনিলচন্দ্র রায় সহ আরও অনেকে। এদিন অবরোধের জেরে ওই রুটে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। দিনহাটা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে।

একই কারণে এদিন সিপিএমের কালিয়াগঞ্জ উত্তর লোকাল কমিটি সহ শাখা সংগঠনগুলির তরফেও কালিয়াগঞ্জেও প্রতিবাদ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। শহরের স্থানীয় রেল স্টেশন সংলগ্ন পেট্রোল পাম্পের সামনে জনগণকে চকলেট খাওয়ানোর মধ্য দিয়ে অভিনব পন্থায় প্রতিবাদ জানানো হয়। শিক্ষক নেতা অয়ন দত্ত জানান, কেন্দ্র ও রাজ্য উভয়েই জনকল্যাণ বিরোধী সরকার।