ময়নাগুড়িতে অবাধে শুয়োর ঘুরছে, নজর নেই প্রশাসনের

বাণীব্রত চক্রবর্তী, ময়নাগুড়ি : ময়নাগুড়ি বাজারে নির্বিঘ্নে ঘুরে বেড়াচ্ছে শুয়োরের দল। এলাকার একাধিক জায়গায় বেআইনি খাটাল বানিয়ে কিছু ব্যবসায়ী শুয়োর পালন করছেন। জনবসতিপূর্ণ এলাকায় এভাবে শুয়োর ঘোরায় সাধারণ মানুষ রোগ ছড়ানোর আতঙ্কে ভুগছেন। বছরখানেক আগে ময়নাগুড়ি থেকে শুয়োরের খাটাল উচ্ছেদে ব্লক প্রশাসন পদক্ষেপ করেছিল। সেসময়ে কিছুদিন পরিস্থিতি স্বাভাবিক ছিল। অধিকাংশ শুয়োর অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল। সময়ে ব্যবধানে ফের পরিস্থিতি জটিল হয়েছে। এ প্রসঙ্গে ময়নাগুড়ি ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ লাকি দেওয়ান বলেন, আবর্জনা এবং শুয়োর থেকে নানাধরনের রোগ ছড়াতে পারে। এগুলি থেকে সতর্ক থাকা দরকার।

ময়নাগুড়ি পুরোনো বাজারে মাছ বাজার ঘেঁষে জরদা নদীর ধারে বেআইনি খাটাল গজিয়ে উঠেছে। এমনকি খেলার মাঠের পেছনে জরদা নদীর ধারে এবং বাস টার্মিনাসের পাশে বহালতবিয়তে খাটাল চলছে। এইসব বেআইনি খাটালের মালিকের কোনো হদিস পাওয়া যায়নি। মাছ ও মাংস ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, ভোর ৫টা নাগাদ মাছ-মাংসের বাজার ঘেঁষে জরদা নদীর ধারে এই শুয়োরগুলিকে কিছু মানুষ এসে খাবার দিয়ে চলে যান। এরপর শুয়োরগুলি প্রায় সারাদিন গোটা বাজার চষে বেড়ায়। বাজারের গণ্ডি ছাড়িয়ে লোকালয়ে ঢুকে যায় শুয়োরের দল। স্থানীয় বাসিন্দা শিক্ষক অসীম চট্টোপাধ্যায় বলেন, প্রশাসনের উচিত এইসব বেআইনি শুয়োরের খাটাল পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া। বাজারে যেভাবে শুয়োর ঘুরে বেড়াচ্ছে তাতে রোগ ছড়াবে। ব্যবসায়ী অমল দাস বলেন, এখানে শুয়োরের উৎপাতে অস্বাস্থ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে।

- Advertisement -

ময়নাগুড়ি বাজার ব্যবসায়ী সমিতির যুগ্ম সহকারী সম্পাদক স্বপন দত্ত ও সুমিত সাহা জানান, তাঁরা এর আগেও প্রশাসনকে বিষয়টি জানিয়েছেন। কারা এভাবে ময়নাগুড়ির বুকে শুয়োর পালন করছেন সেটা প্রশাসনের খতিয়ে দেখা উচিত। এর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা প্রয়োজন। ময়নাগুড়ি নাগরিক চেতনার সভাপতি ধীরেন্দ্রচন্দ্র ঘোষ বলেন, আমরা চাই ময়নাগুড়ি থেকে অবিলম্বে শুয়োরের খাটাল উচ্ছেদ করা হোক। এ প্রসঙ্গে ময়নাগুড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান সজল বিশ্বাস বলেন, আমরা ব্লক প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলে যতটা সম্ভব দ্রুত এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। ময়নাগুড়ি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শিবম রায়বসুনিয়া বলেন, বিষয়টি নিয়ে আমরাও ভাবছি। এরমধ্যেই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ময়নাগুড়ির  বিডিও ফিনটোস শেরপা বলেন, আমরা বিষয়টি নিয়ে সবপক্ষের সঙ্গে পরামর্শ করে পদক্ষেপ করব।