ব্যবসায়ীর তৈরি পিচে রুট-বিরাট লড়াই

চেন্নাই : ভি রমেশ কুমার।
নামটা সম্পর্কে খুব বেশি পরিচিত নয় ভারতীয ক্রিকেট মহল। তামিলনাড়ুর সফল টেক্সটাইল বিজনেসম্যান। যদিও বছর বিয়াল্লিশের ফ্রেঞ্চকাট দাঁড়ির, মোটা ফ্রেমের চশমা পরিহিত মানুষটিই এখন চর্চার কেন্দ্রে। কারণ আসন্ন ভারত-ইংল্যান্ড চেন্নাই টেস্টে অভিষেক ঘটছে রমেশেরও! এই টেক্সটাইল বিজনেসম্যান থেকে পিচ কিউরেটার বনে যাওয়া মানুষটির তৈরি বাইশ গজে মুখোমুখি হবেন বিরাট-রুটরা।

 

- Advertisement -

ক্রিকেট ভালোবাসেন। সংস্থা সামলানোর পাশাপাশি ছোটোদের জন্য পিচও তৈরি করে বেড়ান। তবে কখনও প্রথম শ্রেণির ম্যাচের পিচ বানাননি। হাতেখড়ি একেবারে টেস্ট দিয়ে চমকে দেওয়ার মতো কাহিনি সদ্য চিপক স্টেডিয়ামের পিচের দায়িত্ব পাওয়া রমেশের। তামিলনাড়ুর তিরুপুরে প্রতিষ্ঠিত টেক্সটাইল বিজনেসম্যান ভি রমেশ। নিজে এমবিএ। সেখান থেকে পিচ কিউরেটার!

নতুন বছরের প্রথম সপ্তাহে হঠাৎ ফোন তামিলনাড়ু ক্রিকেট সংস্থার। ইংল্যান্ড সিরিজের প্রথম দুই টেস্টের পিচ তৈরির প্রস্তাব। চমকে গিয়েছিলেন রমেশ। কখনও প্রথম শ্রেণির ম্যাচের জন্য পিচ বানাননি। সেখানে একমাসের মধ্যে টেস্টের পিচ প্রস্তুত! রমেশের কথায়, ফোনটা পেয়ে রীতিমতো অবাক। দুদিন সময় চেয়ে নিই। ব্যবসা সামলে পিচ তৈরির দায়িত্ব আদৌ নিতে পারব তো? পরিবারের সঙ্গে আলোচনার হ্যাঁ বলি।

পিচ তৈরিতে হাতপাকানো প্রসঙ্গে রমেশ বলছিলেন, পেশাদার কিউরেটারদের মতো করে পিচ বানাব ঠিক করে নিই। সুযোগটা করে দেয টিএনসিএ। ওদের সূত্রে বিসিসিআইয়ের পিচ মেকিং কোর্স করি। তারপর ক্রিকেট অ্যাকাডেমি। রমেশের কাজে খুশি টিএনসিএ ২০১৯-এ চিপকের দায়িত্ব দিতে চেয়েছিল। কিন্তু তখন সময় হয়ে ওঠেনি। এবার না বলতে পারেননি।