ক্লাবের তরফে পুলিশ ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সংবর্ধনা

206

রাকেশ শা, ঘোকসাডাঙ্গা: করোনা মোকাবিলায় সরকারিভাবে নেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন পদক্ষেপ। কিন্তু এই সংকটময় পরিস্থিতিতে সব থেকে বড় ভূমিকা গ্রহণ করেছে চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ এবং সাফাইকর্মীরা। নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দিনরাত পরিষেবা দিয়ে চলেছে তাঁরা। তাঁদের কুর্নিশ জানাতে মাথাভাঙ্গা-২ ব্লকের রুইডাঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের নিউ চেংড়াবান্ধা এসএসসি ক্লাব সোমবার স্বাস্থ্যকর্মী ও পুলিশকর্মীদের ফুল ছিটিয়ে, উত্তরীয় পরিয়ে সংবর্ধনা জ্ঞাপন করলেন। এ ছাড়াও সেই দিনের দুপুরের আহারের ব্যবস্থাও করে ক্লাব কর্তৃপক্ষ। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অনগ্রসর শ্রেণী কল্যাণ দফতরের মন্ত্রী বিনয় কৃষ্ণ বর্মন। তিনি ক্লাবের এ হেন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছে।

জানা গিয়েছে, কোচবিহার-আলিপুরদুয়ার জেলার সীমান্তে দুলাল দোকান এলাকায় ঘোকসাডাঙ্গা থানার পুলিশের তরফে নাকা চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। সেখানে একদিকে যেমন চলছে থার্মাল স্কিনিং পাশাপাশি ভিন জেলা থেকে কোচবিহার জেলায় আসা লোক জনের চলছে জিজ্ঞাসা বাদ। ইতি মধ্যে ভিন জেলা বা রাজ্য থেকে আসা অর্থাৎ যাদের ট্রাভেলিং হিস্ট্রি আছে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পাঠানো হচ্ছে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে। পুলিশ সূত্রে জানা যায় ইতিমধ্যে নিয়ম মেনে ঘোকসাডাঙ্গা থানা এলাকার তিনটি কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ৩৫ জন কে রাখা হয়েছে। আর এই কাজ দিন রাত ২৪ ঘন্টা করছে ঘোকসাডাঙ্গা পুলিশ এবং স্বাস্থ্য কর্মীরা পাশে সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছে করোনা মোকাবিলা বাহিনীর স্বেচ্ছা সেবকরা। আর তাদের এই কাজকে কুর্নিশ জানাতে এস এস সি ক্লাব সংবর্ধনা জ্ঞাপন করলেন সকলকে। ক্লাব সভাপতি সম্পাদক নিতাই গোপ জানান, যারা নিজেদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তার খাতিরে দিন রাত কাজ করছেন সেই পুলিশ, স্বাস্থ্যকর্মীদের আজ আমরা শ্রদ্ধার সঙ্গে সংবর্ধনা জ্ঞাপন করলাম।

- Advertisement -

আমাদের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন অনগ্রসর শ্রেণী কল্যাণ মন্ত্রী বিনয় কৃষ্ণ বর্মন। এ ছাড়াও এ দিন সকলের জন্য দুপরের আহারের ব্যবস্থা করা হয় ক্লাবের তরফে। এমনকি প্রতিদিন এই চেক পোস্টে দায়িত্বে থাকা সকলকে ক্লাবের তরফ থেকে দুপুরের আহারের ব্যবস্থা যেমন করা হবে পাশাপাশি প্রতিদিন পুলিশ ক্যাম্পকে সানিটাইজ করবে এসএসসি ক্লাব বলেও জানা। এসএসসি ক্লাবের এ হেন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন অনেকে। এব্যাপারে ঘোকসাডাঙ্গা থানার ডিউটিতে থাকা পুলিশ কর্মী,স্বাস্থ্য কর্মী,করোনা মোকাবিলা বাহিনীর কর্মীরা জানান আমরা বাহিরে থেকে কাজ করছি,আপনারা বাড়িতে থাকুন,সুস্থ থাকুন।বাড়িতে থেকে আমাদের এই কাজে সাহায্য করুন।প্রয়োজন ছাড়া কেউ বের না হওয়ার আর্জি জানান।এদিন ক্লাবের এই উদ্যোগে খুশি তারাও।