হারিয়ে যাওয়া মেয়েকে দেখতে এসে ছেলে ধরা সন্দেহে গণপিটুনি দম্পতিকে, তদন্তে পুলিশ

292

রায়গঞ্জ: নিজের হারিয়ে যাওয়া মূক ও বধির মেয়েকে দেখতে এসে ছেলে ধরা সন্দেহে গণপিটুনির কবলে পড়ল এক দম্পতি। শুক্রবার বিকেলে এই ঘটনায় তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে রায়গঞ্জ শহরের সুদর্শনপুর এলাকায়। ওই দম্পতি বিহারের কাটিহার জেলা থেকে রায়গঞ্জে এসে তাদের  চার বছরের মেয়েকে দেখার জন্য মূক ও বধির হোমের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। চন্ডীতলা বাজারের আগে টোটো ভাড়া নিয়ে চালকের সঙ্গে ওই দম্পতির বচসা বাঁধে। এরপর ওই টোটো চালক ছেলে ধরা বলে চিৎকার শুরু করে দেয়। পথচলতি উন্মুক্ত জনতা বেধড়ক মারধর শুরু করে তাদের। প্রাণে বাঁচতে সেখান থেকে দৌড়ে পালিয়ে এক বাড়ির বাথরুমে আশ্রয় নেয় তারা। খবর পেয়ে ছুটে আসে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। পুলিশ ওই দম্পতিকে উদ্ধার করে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই দম্পতির নাম পাপ্পু যাদব ও পিংকি দেবী। জখম পাপ্পু যাদব বলেন, ‘আমার সাড়ে চার বছরের মূক ও বধির কন্যা সন্তান রয়েছে কর্ণজোড়ার হোমে। দেড় বছর আগে সে বাড়ি থেকে হারিয়ে যায়। মাস ছয়েক আগে জানতে পারি কর্ণজোড়ার একটি হোমে রয়েছে সে। সমস্ত প্রমানপত্র নিয়ে টোটোতে সেখানেই যাচ্ছিলাম। টোটো ভাড়া নিয়ে চালকের সঙ্গে বচসা বাঁধলে আমাদের মারধর শুরু করে সে। সঙ্গে চিৎকার করতে থাকে ছেলেধরা বলে। সমস্ত কাগজপত্র ও টাকা পয়সা নিয়ে পালিয়ে যায় টোটো চালক। আমার মেয়েকে কিভাবে ফিরে পাব তা বুঝতে পারছিনা।‘ রায়গঞ্জ থানার পুলিশ আধিকারিক বলেন, ‘জখমদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ওই টোটো চালকের খোঁজে তল্লাশি চলছে। সম্পূর্ণ বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।‘

- Advertisement -