ব্যক্তিগত শত্রুতার জেরে আগুন দোকানে, তদন্তে পুলিশ

65

রায়গঞ্জ: দুটি দোকানে আগুন লাগানোর অভিযোগ উঠল দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার ভোরে এই ঘটনা ঘটেছে রায়গঞ্জের ধলগাঁও গ্রামে। বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী ওই গ্রামে অগ্নিকাণ্ডকে ঘিরে রীতিমতো তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়েছে। পূলিশ সূত্রে খবর, লক্ষাধিক টাকার মুদিখানার জিনিসপত্র ছিল দোকানে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ এবং দমকলের দুটি ইঞ্জিন।   ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। ভাটোল ফাঁড়ির ওসি আশিস কুন্ডু বলেন, ‘অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত চলছে। সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে তদন্ত শুরু হয়েছে। এর সঙ্গে কারা যুক্ত তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত নাম বলা সম্ভব নয়।‘

স্থানীয় সূত্রে খবর, ভোরবেলা হঠাৎই টিন ফাটার শব্দে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন গ্রামবাসিরা। পুলিশ ও দমকলে খবর দিয়ে নিজেরাই আগুন নেভানোর চেষ্টা শুরু করেন। পরে ঘটনাস্থলে দমকলের দুটি ইঞ্জিন পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। ঘটনার তদন্তে নেমছে পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, সম্ভবত ব্যক্তিগত শত্রুতা থেকেই এই অগ্নিকান্ড। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, দুষ্কৃতীরা দোকানের টিন কেটে সেখানে পেট্রোল ঢেলে আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছে। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী নাসিরুদ্দিন মহম্মদ স্থানীয় কয়েকজন দুস্কৃতীর বিরুদ্ধে ভাটোল ফাঁড়িতে অভিযোগ দায়ের করেছেন। ক্ষতিগ্ৰস্ত ব্যবসায়ীর অভিযোগ, ব্যক্তিগত শত্রুতার জন্যই তার দোকানে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। কিছুমাস আগে এই এলাকায়  ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীর কাকা ইব্রাহিম মহম্মদের মুদিখানার দোকানকে কিছু দুষ্কৃতীরা পুড়িয়ে দিয়েছিল। ওই ঘটনায় কিছু যুবককে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ এবং এই ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী নাসিরুদ্দিন সেই ঘটনায় সাক্ষী দিয়েছিলেন। ফলে সেই দুষ্কৃতিরাই প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য তার দোকান পুড়িয়ে গিয়েছে বলে তাদের অভিযোগ।

- Advertisement -