পুলিশের নজরে আসিফের ল্যাপটপ-কম্পিউটরের সার্চ হিস্ট্রি

61

কালিয়াচক: কালিয়াচক কাণ্ডে তদন্তে নেমে একাধিক তথ্য উন্মোচিত করেছেন তদন্তকারী পুলিশ কর্তারা। কখনও উঠে এসেছে ডার্ক ওয়েব ব্যবহার করে আগ্নেয়াস্ত্র কেনা আবার কখনও উঠে এসেছে নেট দুনিয়ায় সেক্স চ্যাটে আসক্তের বিষয়। এবার সামনে আসছে অন্য বিষয়। তদন্তকারী পুলিশ কর্তাদের একাংশের অনুমান মৃত্যুকালে মানুষের অভিব্যক্তি কেমন হয়? তা ক্যামেরাবন্দি করে ওয়েবসাইটে বিক্রির জন্যই একযোগে পরিবারের চার সদস্যকে খুন করে থাকতে পারে আসিফ। এবিষয়টিকে এখনই চূড়ান্ত বলে গন্য না করলেও এমন সম্ভাবনার কথা একেবারেই উড়িয়ে দিচ্ছেন না তদন্তকারীরা। তবে, তদন্তকারী পুলিশ কর্তাদের প্রাথমিক অনুমান আসিফের ল্যাপটপ সহ ইলেকট্রনিক গ্যাজেটগুলি নিয়ে বিশেষ চর্চার প্রয়োজন রয়েছে। সেক্ষেত্রে ঘেটে দেখা হচ্ছে আসিফের ল্যাপটপ-কম্পিউটরের সার্চ হিস্ট্রিও।

দাদার বয়ানের ভিত্তিতে ১৮ জুন প্রকাশ্যে আসে নারকীয় হত্যাকাণ্ডের ঘটনা। সেই রাতেই পুলিশের জালে ধরা পড়ে একই পরিবারের চার সদস্যকে খুন কাণ্ডে মূল অভিযুক্ত আরিফ। এরপরেই খুনের ঘটনার কিনারা করতে কোমর বেঁধে ময়দানে নামে মালদা পুলিশ। অন্যদিকে, খুনের ঘটনার তদন্তে নামে সিআইডি এবং ফরেন্সিক ডিপার্টমেন্টের কর্তারা। শুরু হয় আসিফের বাড়ি থেকে উদ্ধার হওয়া ইলেকট্রনিক গ্যাজেট নিয়ে চুল চেরা বিশ্লেষণ। এরপরেই তদন্তকারী পুলিশ কর্তারা জানতে পারেন ধৃত আসিফ ডার্ক ওয়েব ব্যবহার করে আগ্নেয়াস্ত্র কিনেছিল। ঘটনায় রহস্য আরও বাড়তে শুরু করে। এই পরিস্থিতিতে এবার তদন্তকারী পুলিশ কর্তারা চাইছেন ধৃতের বাড়ি থেকে উদ্ধার হওয়া ইলেকট্রনিক গ্যাজেট খতিয়ে দেখলে সামলে আসবে আরও একাধিক তথ্য।

- Advertisement -