অভিযোগ পেয়ে মাদারিহাটে মাদক দ্রব্যের সন্ধানে পুলিশ

412

রাঙ্গালিবাজনা: আলিপুরদুয়ার জেলার মাদারিহাট থানার অন্তর্গত শিশুবাড়ি চৌপথির বাসিন্দা এক ব্যক্তি রমরমিয়ে মাদকের কারবার চালাচ্ছেন। অন্যদিকে, শিশুবাড়ি উপ ডাকঘর সংলগ্ন এলাকায় দেদার বিকোচ্ছে চোলাই। এই ঘটনার বিরুদ্ধে রবিবার বিকেলে মাদারিহাট থানায় স্মারকলিপি দেন শিশুবাড়ির বাসিন্দারা। স্মারকলিপি পেয়ে সোমবার ওই বাড়িতে গিয়ে মাদকদ্রব্যের সন্ধান চালায় পুলিশ। তবে, এদিন ওই বাড়িতে কোনো মাদকদ্রব্য উদ্ধার হয়নি বলে মাদারিহাট থানা সূত্রে জানানো হয়েছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, মাদারিহাট থানার অন্তর্গত শিশুবাড়ি সহ সন্নিহিত এলাকায় সারা বছরই চোলাই, ভূটানী মদ, মাদক দ্রব্য কেনাবেচা ও জুয়ার আসর রমরমিয়ে চলে। দিনদিন এ ধরণের বেআইনি কার্যকলাপ বাড়ছে শিশুবাড়িতে। এই সব অসামাজিক কাজের প্রতিকার চেয়ে মাদারিহাট থানায় এলাকার যুবক মারুফ আজিজ, আজিজুল হোসেন, বিকাশ ঘোষ সহ ৪৪ জন অভিযোগ করেন। নেশাগ্রস্তরা নানা অপরাধমূলক ও অসামাজিক কাজকর্মে জড়িয়ে পড়ছে। অথচ, শিশুবাড়ি চৌপথির বাসিন্দা ওই ব্যক্তি বাড়ি থেকেই মাদক বিক্রির কাজকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। তাঁর বাড়ি ৪৮ নম্বর এশিয়ান হাইওয়ে ঘেঁষে অবস্থিত। গভীর রাতে তাঁর বাড়িতে মাদক সরবরাহকারীরা গাড়ি নিয়ে আসে বলে তারা পুলিশকে জানান।

- Advertisement -

উল্লেখ‍্য, গত ২১ সেপ্টেম্বর ওই ব্যক্তির বাড়িতে পুলিশ হানা দিয়ে মাদকদ্রব্য বাজেয়াপ্ত করে বলে স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রের খবর। মাদারিহাট থানার ওসি টিএন লামা বলেন, “বমাল গ্রেপ্তার করা সম্ভব না হলে কারও বিরুদ্ধে এনডিপিএস আইনে মামলা রুজু করা যায় না। ওই ব্যক্তির বাড়ি থেকে মাদকদ্রব্য উদ্ধারের সময় তাঁকে পাওয়া যায়নি। তবে তাঁর ওপর কড়া নজর রাখা হচ্ছে। আবার, অনেক সময় স্থানীয়দের দেওয়া ভুল তথ্যের ওপর ভরসা করে ছুটে গিয়ে খালি হাতে ফিরতে হচ্ছে পুলিশকে।”

প্রসঙ্গত, গোটা মাদারিহাট বীরপাড়া ব্লক জুড়েই মাদকের কারবারের জাল ক্রমেই বিস্তৃত হচ্ছে বলে অভিযোগ। অবশ্য পুলিশের অভিযানে মাঝে মাঝেই বাজেয়াপ্ত হয় বেআইনি মদ, সিডেটিভ ট্যাবলেট, কাশির নিষিদ্ধ সিরাপ। এছাড়া দলমোর চা বাগান এলাকা থেকে কয়েক মাস আগে ব্রাউন সুগারও বাজেয়াপ্ত করেছে বীরপাড়া থানার পুলিশ। তবে এলাকাবাসীর অভিযোগ, যেভাবে মাদক দ্রব্য ও মদের কারবার চলছে, তার সিকি অংশও বাজেয়াপ্ত হচ্ছে না।