রায়নায় ব্যবসায়ী খুনের ঘটনায় এখনও অন্ধকারে পুলিশ

87

পূ্র্ব বর্ধমান: ৪৮ ঘন্টা পেরিয়ে গেলেও পূ্র্ব বর্ধমানের রায়নার দেরিয়াপুর গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে আসা কলকাতার ব্যবসায়ী সব্যসাচী মণ্ডলের খুনের তদন্তের কিনারা করতে পারলনা পুলিশ। রবিবার সিআইডি ও ফরেন্সিক দল দেরিয়াপুর গ্রামে তদন্তে যায়। ফরেন্সিক দলের সিনিয়র সায়েন্টিস্ট চিত্রাক্ষ সরকার ঘটনাস্থল ঘুরে পুলিশকে জানান, দোতলা বাড়ির নিচের তলাতে ১০ মিনিটের বেশী সময় নিয়ে একাধিক আততায়ী মিলে খুনের ঘটনাটি ঘটিয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, শুক্রবার ব্যবসায়ী সব্যসাচী মণ্ডল বন্ধু রাজবীর সিংকে সঙ্গে নিয়ে রায়নার দেরিয়াপুরের দেশের বাড়িতে বেড়াতে আসেন। ওই দিন রাতেই তাঁর বাড়িতে দুস্কৃতীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে খুন করে তাঁকে। ময়নাতদন্তে তাঁর দেহের ২৯টি জায়গায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। ব্যবসায়ীকে বাঁচাতে গিয়ে তাঁর বন্ধু রাজবীর সিংও চোট পান। এই খুনের ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ ব্যবসায়ীর গাড়ির চালক ও রাঁধুনিকে নিজেদের হেপাজতে নিয়ে জেরা চালিয়ে যাচ্ছে। মৃত ব্যবসায়ীর বাবা দেবকুমার মণ্ডলের অভিযোগ, ছেলের খুনের ঘটনায় তাঁর ভাই গৌরহরি মণ্ডল, তাঁর স্ত্রী পূর্ণিমাদেবী ও দুই ভাইপো দীনবন্ধু ও সোমনাথ জড়িত রয়েছে। এরাই সুপারি কিলারদের দিয়ে সব্যসাচীকে খুন করিয়েছে বলে দেবকুমারবাবুর পুলিশকে জানিয়েছেন। এসডিপিও আমিনুল ইসলাম খান বলেন, ‘সন্দেহভাজনদের এখনও জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। আততায়ীদের নাগাল পেতে সব দিক খতিয়ে দেখা হচ্ছে’

- Advertisement -