পুলিশ পরিচয় দিয়ে প্রতারণা, গ্রেপ্তার ৪

568

বর্ধমান: পুলিশ পরিচয় দিয়ে প্রতারণার অভিযোগে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করল পূর্ব বর্ধমানের রায়না থানার পুলিশ। প্রতারণা চক্রের দুই পাণ্ডা সহ চারজনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। বেকার ছেলেদের পুলিশে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নামে আর্থিক প্রতারণার অভিযোগ রয়েছে ধৃতদের বিরুদ্ধে। এক প্রতারিত যুবকের দায়ের করা অভিযোগের পরই ওই চক্রের পর্দা ফাঁস হল।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃতদের নাম রাজেন হাজরা, নাজেম মল্লিক, সত্যজিৎ বিট্টার ও শেখ জানারুল ওরফে পিন্টু। রাজেন ও সত্যজিতের বাড়ি বর্ধমান থানার কান্টিয়া এলাকায়। নাজেমের বাড়ি জামালপুর থানার  জানকুলি গ্রামে। আর জানারুলের বাড়ি বর্ধমান শহরের বাথানপুরে। পুলিশ জানিয়েছে, প্রতারণা চক্রের মূল পাণ্ডা রাজেন হাজরা। তাঁর প্রধান দুই সাগরেদ হল নাজেম ও সত্যজিৎ। অপর ধৃত জানারুল পেশায় গাড়ি চালক। পুলিশের দাবি, ধৃতদের কাছ থেকে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের ভুয়ো পরিচয়, নিয়োগ, আবেদনপত্র, একাধিক ব্যাংকের চেকবই, ডেবিট কার্ড ও স্ট্যাম্প উদ্ধার হয়েছে।

- Advertisement -

তদন্তে নেমে পুলিশ কর্তারা জানতে পেরেছেন, ধৃতরা কনস্টেবল ও হোমগার্ড পদে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে রায়না সহ জেলার বিভিন্ন এলাকার বেকার যুবকদের থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। তারমধ্যে শুধু রায়না থানা এলাকার ৬-৭ জনের কাছ থেকেই প্রতারকরা প্রায় ২৪ -২৫ লক্ষ টাকা আদায় করেছেন।

রায়না থানার পুলিশ মঙ্গলবার ধৃত চারজনকেই বর্ধমান আদালতে পেশ করে। ভারপ্রাপ্ত সিজেএম রাজর্ষী মুখোপাধ্যায় রাজেনের ৩ দিনের পুলিশ হেপাজত ও  বাকিদের বিচার বিভাগীয় হেপাজতের নির্দেশ দিয়েছেন।

পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, প্রতারণা চক্রের মূল পাণ্ডা রাজেন হাজরা। তিনি নিজেকে হোমগার্ডের  একজন  অফিসার হিসেবে পরিচয় দিতেন। পুলিশে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রতারণা চালিয়ে যাচ্ছিল চক্রটি। ওই চক্রের জাল কতদূর বিস্তৃত তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।